You are here
Home > জাতীয় > হলি আর্টিজানে হামলার তদন্ত শেষ পর্যায়ে : মনিরুল

হলি আর্টিজানে হামলার তদন্ত শেষ পর্যায়ে : মনিরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেছেন, নব্য জেএমবি’র সদস্য আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে র‌্যাশকে গ্রেপ্তারের পর গুলশান হলি আর্টিজানে হামলা মামলার তদন্ত কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। শিগগিরই হলি আর্টিজান মামলার চার্জশিট দাখিল করা হবে।

আজ শনিবার রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মনিরুল ইসলাম বলেন, রাশেদকে আদালতে তুলে ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে। সে যদি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় অথবা না দেয়, তার কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে আমরা চার্জশিট তৈরির কাজ শুরু করব।

তিনি জানান, রাশেদ ছিল হলি আর্টিজান হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী তামিম চৌধুরীর ঘনিষ্ঠ সহযোগী। সে এ হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী। গুলশান হামলায় সে অস্ত্র সরবরাহ করেছে ও হামলায় অংশগ্রহণকারীদের প্রশিক্ষণও দিয়েছে। সে এই হামলার ঘটনাস্থল রেকি করা, হামলার জন্য বসুন্ধরা এলাকায় বাসা ভাড়া করায় সহযোগিতা করেছে। সে জঙ্গি আস্তানার সকল ফার্নিচার ক্রয় করে দেয়। অর্থাৎ হলি আর্টিজান হামলায় রাশেদ খুব ভালোভাবে সম্পৃক্ত ছিল।

তিনি আরও জানান, গুলশানে হামলাকারীরা যখন কথিত হিজরতের নামে বাসা ছাড়ে তখন তাদেরকে রাশেদ রিসিভ করে মিরপুরের আস্তানায় নিয়ে যায়। আজিমপুরের আস্তানাটি ভাড়া নেয় রাশেদ। শুক্রবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে গুলশান হলি আর্টিজান হামলার অন্যতম পরিকল্পনাকারী মো. আসলাম হোসেন ওরফে রাশেদ ওরফে র‌্যাশ ওরফে আবু হাররাকে নাটোরের সিংড়া থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

২০১৬ সালের ১ জুলাই গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে দেশের সবচেয়ে ভয়াবহ জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ১৭ বিদেশি নাগরিকসহ ২০ জনকে হত্যা করে জঙ্গিরা। পরদিন সকালে কমান্ডো অভিযান চালানো হয়। ‘অপারেশন থান্ডার বোল্ট’ নামে ওই অপারেশনে ৫ জঙ্গিসহ ৬ জন নিহত হয়।

Leave a Reply

Top