You are here
Home > প্রচ্ছদ > সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় কুমিল্লার একই পরিবারের ৩ জন নিহত

সৌদিতে সড়ক দুর্ঘটনায় কুমিল্লার একই পরিবারের ৩ জন নিহত

বিশেষ প্রতিবেদকঃ সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় কুমিল্লার একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছে। স্থানীয় সময় রবিবার ভোররাত সাড়ে ৩টায় জেদ্দা বিমানবন্দরের অদূরে বাকুয়া নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই পরিবারের আরও তিনজন আহত হয়। এদের মধ্যে গুরুতর আহত হয়েছে নারিতা নামে দুই বছরের এক মেয়ে শিশু। তাকে সৌদি আরবের একটি সরকারি হাসপাতালের আইসিউতে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন কুমিল্লার কোটবাড়ি সংলগ্ন বাংলাবাজার গুনানন্দী এলাকার দুলা মিয়ার ছেলে তফাজ্জল হোসেন( ৩৮), তার ১২ বছরের ছেলে, স্থানীয় ইবনে তাইমিয়া স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র শাহরিয়ার হোসেন এবং তফাজ্জল হোসেনের শাশুড়ি কোটবাড়ির মাঝিপাড়া এলাকার মো. আবদুর রাজ্জাকের স্ত্রী শাহনাজ বেগম (৬২)।

আহতরা হলেন দুর্ঘটনায় নিহত তফাজ্জল হোসেনের স্ত্রী শাম্মী আক্তার( ৩৫), তার দুই মেয়ে সন্তান সামান্তা আক্তার মীম ( ১২) ও নারিতা আক্তার (২)। এ ঘটনায় মাঝিপাড়া ও বাংলাবাজার গুনানন্দীতে স্বজনদের মাঝে শোকের মাতম চলছে। এতে ম্লান হয়ে গেছে নিহতদের স্বজনদের রমজান ও ঈদের আনন্দ।

মাঝিপাড়া গিয়ে নিহতের স্বজনদের সাথে কথা বলে জানা যায়, শনিবার বেলা এগারোটার সময় ওমরাহ হজ পালনের লক্ষ্যে কুমিল্লা থেকে ঢাকা বিমানবন্দরের উদ্দেশে রওয়ানা দেন শাহনাজ আক্তার ও তার দুই নাতি-নাতনি শাহরিয়ার হোসেন এবং সামান্তা আক্তার। রবিবার ভোররাত তিনটার সময় তারা সৌদি আরবের জেদ্দা বিমান বন্দরে পৌঁছান। এসময় তাদেরকে এগিয়ে নিতে আসেন নিহত শাহনাজ আক্তারের জামাতা সৌদি আরবে কর্মরত তফাজ্জল ও মেয়ে শাম্মী। সাথে আসেন তফাজ্জল-শাম্মী দম্পতির দুই বছরের মেয়ে সন্তান নারিতা। বিমানবন্দর থেকে তাদের গাড়ি বাকুয়ায় পৌঁছালে পেছন দিক থেকে একটি গাড়ি তাদের গাড়িকে ধাক্কা দেয়। এ সময় ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হয়।

সোমাবর দুপুরে সড়ক দুর্ঘটনার খবর কুমিল্লায় পৌঁছলে বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে আসে। স্বজনদের কান্নায় ভারী হয়ে ওঠে বাড়ির পরিবেশ। নিহত শাহনাজ ও তার নাতি শাহরিয়ারের জুলাই মাসে বাংলাদেশে ফিরে আসার কথা ছিল। এখন স্বজনরা নিহতদের লাশ দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন।

Leave a Reply

Top