You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > সরিষাবাড়ীতে যুবলীগ নেতার লালসার শিকার তরুণী ৭ মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা

সরিষাবাড়ীতে যুবলীগ নেতার লালসার শিকার তরুণী ৭ মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি :


জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে যুবলীগ নেতার লালসার শিকার বিএ ক্লাশের অধ্যয়নরত এক তরুণী ৭ মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।এ ঘটনায় সোমবার রাতে অন্তঃস্বত্ত্বা তরুণী রাজিয়া সুলতানা বাদী হয়ে যুবলীগ নেতা মাসুদ ও তার মা ছালেহা বেগমকে বিবাদী করে দুই জনের বিরুদ্ধে সরিষাবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।


থানায় দেয়া অভিযোগ ও পরিবার সুত্রে জানা গেছে-সরিষাবাড়ী উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের সেঙ্গুয়া গ্রামের আফজাল হোসেনের মেয়ে রাজিয়া সুলতানার সাথে পাশের বড়শরা গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে মাসুদ রানা’র প্রেমের সম্পর্ক চলছিল দীর্ঘদিন ধরে।ওই সম্পর্কের জের ধরে রাজিয়া কে বিয়ের আশ্বাষে শাররীক সম্পর্ক গড়ে তোলে।এতে রাজিয়া অন্তঃস্বত্তা হয়ে পড়ে। বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শে সরিষাবাড়ী সততা ডায়াগনেষ্টিক সেন্টারে অন্তঃসত্ত্বা পরীক্ষা করলে সতত্যা মিলে।এ ঘটনা রাজিয়া তার প্রেমিক মাসুদকে জানালে তিনি কাউকে না বলার জন্য নিষেধ করে এবং প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেবে বলে শান্তনা দেন।পরে রাজিয়া তাকে বিয়ে করার জন্য বললে মাসুদ রানা বিয়েতে অস্বীকৃতি জানায় এবং তার গর্ভের সন্তানকে মেরে ফেলা সহ তাকে নানা ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে।এর পরেও সাত মাসের অন্তঃস্বত্তা রাজিয়া সুলতানা গত ২৯ জুন মাসুদ রানা’র বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি তার পরিবারের নিকট অবগত করলে তারা ক্ষুব্ধ হয়ে রাজিয়াকে শাররীক নির্যাতন করে বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়। মাসুদের হুমকিতে রাজিয়া ও তার পরিবার পরিজন নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বলে জানান সাংবাদিকদের।


এ ব্যাপারে রাজিয়ার মাতা সাজেদা বেগম বলেন,আমার মেয়েকে বিয়ে দিয়েছিলাম।মাসুদ সেখান থেকে নানান কথা বলে সংসার ভেঙ্গে দিয়েছে। এরপর মেয়েটিকে বিভিন্ন সময় বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক করে আসছিল। এর প্রতিবাদ করলে আমার মেয়ে ও আমাদের মেরে ফেলার হুমকি দিত। আমার মেয়ে সাত মাসের অন্তঃস্বত্তা । আমি এর বিচার চাই।


অভিযুক্ত মাসুদ রানা ওরফে মাসুদ মহাদান ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য বলে দলীয় সুত্রে জানা গেছে।এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন,গভীর ষড়যন্ত্র করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তুলেছেন ষড়যন্ত্রকারীরা। তিনি আরও বলেন, রাজিয়া গর্ভের সন্তান আমার নয় অন্য কারো।


সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ মাজেদুর রহমান বলেন,অন্তঃস্বত্তা তরুণী’র অভিযোগ পাওয়া গেছে ।তদন্ত করে দোষীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Top