You are here
Home > প্রচ্ছদ > সরকারের জুলুম-নির্যাতন আর স্পর্শ করবে না এমকে আনোয়ারকে : মির্জা ফখরুল

সরকারের জুলুম-নির্যাতন আর স্পর্শ করবে না এমকে আনোয়ারকে : মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার : বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য এমকে আনোয়ারকে শেষ বিদায় জানাল বিএনপি। শেষ বিদায় দেয়ার সময় এমকে আনোয়ারকে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের ‘আপসহীন সৈনিক’ হিসেবে স্মরণ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, বর্তমান সরকারের কোনো নির্যাতন ও জুলুম এখন আর তাকে স্পর্শ করবে না। তিনি আরও বলেন, “এমকে আনোয়ার ছিলেন সৎ, যোগ্য ও নিষ্ঠাবান রাজনীতিবিদ। বর্তমান সরকারের কোনো নির্যাতন ও জুলুম তাকে দমাতে পারেনি।” মির্জা ফখরুল বলেন, “তার মৃত্যু চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনের জন্য এটি বড় ক্ষতি। এই ক্ষতি পূরণ হওয়ার নয়। তার চলে যাওয়ার শোক যেন তার পরিবার ও আমরা যেন সহ্য করতে পারি সে প্রার্থনা করছি।”

এর আগে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এমকে আনোয়ারের দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার পর ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে এমকে আনোয়ারকে চিরবিদায় জানান বিএনপি ও ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। এসময় এসব কথা বলেন বিনপি মহাসচিব। এসময় প্রথমে কফিনে ফুল দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এর পর প্রয়াত সহকর্মীকে শ্রদ্ধা জানান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খোন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর প্রমুখ।

উল্লেখ্য, সোমবার দিনগত রাত ১টা ২০ মিনিটে রাজধানীর এলিফেন্ট রোডের নিজ বাসভবনে বার্ধক্যজনিত কারণে বিএনপি নেতা এমকে আনোয়ার ইন্তেকাল করেন। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। সাবেক এ মন্ত্রীর মৃত্যুর খবর জানার পর পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক প্রকাশ করেন বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া এবং দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তারা শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

এদিকে এমকে আনোয়ারের মৃত্যুর খবর শোনার পর বেলা ১১টায় পূর্বনির্ধারিত সংবাদ সম্মেলন বাতিল করে বিএনপি। এর পর দুপুর ১২টায় কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এমকে আনোয়ারের দ্বিতীয় জানাজা ও শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের আয়োজন করে বিএনপি। এর আগে সকাল ১০টায় কাটাবন মসজিদে এমকে আনোয়ারের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। বিএনপির শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের পর দুপুর ১টায় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় মরহুমের তৃতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার বাদ আসর কুমিল্লার হোমনায় নিজ বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে এ বিএনপি নেতাকে দাফন করা হবে। এমকে আনোয়ারের পুরো নাম মোহাম্মদ খোরশেদ আনোয়ার। তিনি ১ জানুয়ারি ১৯৩৩ সালে কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি পাকিস্তান ও বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন উচ্চপদে দায়িত্ব পালন করেছেন। সরকারি চাকরি থেকে অবসরগ্রহণের পর রাজনীতিতে জড়িয়ে তিনি পরবর্তী সময় ৫ বার জাতীয় সংসদ সদস্য ও দুবার মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

Leave a Reply

Top