You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > শ্রীপুরে বালুর স্তুপের নিচে মিললো শিশু দুর্জয়ের মরদেহ।

শ্রীপুরে বালুর স্তুপের নিচে মিললো শিশু দুর্জয়ের মরদেহ।

মোঃ নাজিম উদ্দিন :


গাজীপুরের শ্রীপুরে বালুর নিচ থেকে জাহিদ হাসান দুর্জয় (১১) নামের এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 
শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) সকালে শ্রীপুর উপজেলার  কাওরাইদ ইউনিয়নের বিধায় গ্রামের চায়না ফ্যাক্টরীর প্রজেক্টের বালির নিচ থেকে এ শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়।   
শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের বিধায় গ্রামের আকতারুজ্জামানের দুই ছেলে ছোট ছেলে জারিফ হাসান দিহান (৫) ও বড় ছেলে নিহত জাহিদ হাসান দুর্জয় (১১) সে স্থানীয় তেলিহাটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র ছিল ।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়,গত কাল বৃহস্পতিবার  বিকেল থেকে শিশু জাহিদ নিখোঁজ ছিল। এ ব্যাপারে অনেক খোঁজাখুজি করে না পেয়ে  রাতে মাইকিং করে ছিল দুর্জয়ের স্বজনরা। পরে  শুক্রবারে সকালে শিশুর স্বজনেরা স্থানীয় ভাবে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে শিশুর দাদী কমলা খাতুন চায়না ফ্যাক্টরীর প্রজেক্টে গিয়ে বালির উপর বাঁশ এবং বাঁশের পাতা দেখতে পায়। পরে শিশুর দাদী এই বাঁশ এবং বাঁশের পাতা সরালে জাহিদের মরদেহ দেখতে পেয়ে,পরে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে। মরদেহটির মুখের অংশ ছাড়া পুরো অংশই বালুর নিচে পুঁতা ছিল।
নিহতের বাবা আক্তারুজ্জামান বলেন,আমার ছেলেকে খুন করা হয়েছে। পূর্বের শত্রুতার জেরে হাসমতের পুলা মানিক মিয়া,লাল মিয়া,চান মিয়া,দুলাল মিয়া এবং সাইজুদ্দিন ওরা সবাই  মিলে আমার ছেলেকে খুন করেছে। এর আগেও ওরা আমার বাড়ীতে আগুন লাগিয়েছে, ঘরের দরজা ভেঙ্গেছে গ্রামের লোকজন এ ব্যাপারে সবাই জানে।
শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নয়ন ভুইয়া জানান, নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। হত্যায় জড়িতদের খুঁজে বের করতে পুলিশ ইতিমধ্যে অভিযান শুরু হয়েছে।
শ্রীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি লিয়াকত আলী বলেন,নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত হত্যার কারণ জানা যায়নি মামলা পক্রিয়াধীন।

Leave a Reply

Top