You are here
Home > খেলাধুলা > লিওনেল মেসির দখলে থাকা যত রেকর্ড ও মাইলফলক

লিওনেল মেসির দখলে থাকা যত রেকর্ড ও মাইলফলক

দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে উয়েফা ক্লাব প্রতিযোগিতায় ১০০ গোলের কীর্তিতে নাম লেখান লিওনেল মেসি। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে অনেক রেকর্ড ও মাইলফলক গড়েছেন বার্সেলোনার প্রাণভোমরা। ত্রিশ বছর বয়সে এসে অর্জনের খাতায় অন্যদের সঙ্গে আর্জেন্টাইন আইকনের প্রভেদ স্পষ্ট।

ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলে সবার আগে গোলের সেঞ্চুরি উদযাপন করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। দ্রুততম বিচারে অবশ্য মেসির চেয়ে বেশ পিছিয়ে রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগিজ সুপারস্টার। ২১ ম্যাচ কম খেলে তিন অঙ্কের ঘরে প্রবেশ করেছেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী। গত এপ্রিলে এ উচ্চতায় পা রেখেছিলেন সিআর সেভেন।

১২২ ম্যাচের মাথায় শততম গোল পূর্ণ হয় মেসির। চ্যাম্পিয়নস লিগে ৯৭ ও বাকি তিনটি আসে উয়েফা সুপার কাপে। দু’দিন আগে ন্যু ক্যাম্পে রেকর্ডময় গোলটি করেন গ্রিক ক্লাব অলিম্পিয়াকোসের বিপক্ষে। বলা বাহুল্য, উয়েফা ক্লাব ইভেন্টে রোনালদোর নামের পাশে ১১৩টি গোল (চ্যাম্পিয়নস লিগে ১১০)।

ক্লাব ও জাতীয় দলের জার্সিতে মেসির উল্লেখযোগ্য রেকর্ডগুলো তুলে ধরা হলো:

•  চ্যাম্পিয়নস লিগে যৌথভাবে সর্বোচ্চ সংখ্যক হ্যাটট্রিক (৭টি, ভাগাভাগি করেছেন রোনালদোর সঙ্গে)
•  চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্বে সবচেয়ে বেশি গোলের মালিক (৬০)
•  চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোতে সর্বোচ্চ গোলস্কোরার (২১)
•  সবচেয়ে বেশিবার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার ব্যালন ডি’অর জয়ী (৫ বার)
•  লা লিগার ইতিহাসে টপ গোলস্কোরার (৩৬০)
•  লিগে এক মৌসুমে সবচেয়ে বেশি গোল (৫০টি, ২০১১-১২ সিজন)
•  এক পঞ্জিকাবর্ষে সর্বোচ্চ গোলস্কোরার (৭৯টি, ২০১২ সাল; আর্জেন্টিনার গোল মিলিয়ে ৯১টি)।
•  ক্লাবের হয়ে শিরোপা (২৯)

আর্জেন্টিনার সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলস্কোরার মেসি। ৬১ বার প্রতিপক্ষের জালে বল পাঠিয়েছেন। বিশ্বকাপে কনিষ্ঠতম আর্জেন্টাইন হিসেবে গোল করার রেকর্ডটিও তার দখলে (১৮ বছর ৩৫৭ দিন)। এখন অধরা ওয়ার্ল্ডকাপ জয়ের মিশন।

গতবার (২০১৪) ব্রাজিলের মারাকানা স্টেডিয়ামে স্বপ্ন পূরণের কাছাকাছি গিয়েও না পাওয়ার হতাশায় ডোবেন দিয়েগো ম্যারাডোনার উত্তরসূরি। আগামী বছর রাশিয়ায় মেসির ‘শেষ সুযোগ’। সম্প্রতি একাই আর্জেন্টিনাকে বাছাইপর্ব থেকে বিশ্বকাপে তুলেছেন। ইকুয়েডরের মাঠে শেষ ম্যাচে করেন অবিস্মরণীয় এক হ্যাটট্রিক।

Leave a Reply

Top