You are here
Home > খেলাধুলা > রোনালদোর রেকর্ডের রাতে নায়ক মার্সেলো

রোনালদোর রেকর্ডের রাতে নায়ক মার্সেলো

স্টাফ রিপোর্টারঃ ৮২ থেকে ৮৬—এই চারটি মিনিট সম্ভবত মহাকালের মতোই মনে হয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ সমর্থকদের কাছে! একটু হলেই যে দুটি পয়েন্ট হারাতে বসেছিল জিনেদিন জিদানের দল। ২৭ মিনিটে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর গোলে এগিয়ে যাওয়া, ৮২ মিনিটে দানি পারেহোর দুর্দান্ত ফ্রি-কিকে ভ্যালেন্সিয়ার সমতায় ফেরা।

এরপরই পা ফসকানোর আশঙ্কা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা আর হয়নি। হতে দেননি মার্সেলো। ৮৬ মিনিটে দুর্দান্ত এক গোল করে ঘরের মাঠে রিয়াল মাদ্রিদকে জিতিয়ে দিলেন ২-১ গোলে। এ জয়ে শিরোপা জয়ে বার্সেলোনার চেয়ে কিছুটা এগিয়ে থাকার সুবিধাটা ধরে রাখল রিয়াল। আর রঙিন হলো রোনালদোর রেকর্ড গড়ার রাত। মার্সেলোর গোলটা না হলে যে রেকর্ডের আনন্দ নয়, পেনাল্টি মিস করার দুঃখেই পুড়তে হতো তাঁকে। রোনালদো আর রেকর্ড—এ আর নতুন কী! তিনি নামবেন, গোল করবেন, রেকর্ড গড়বেন…এতেই তো অভ্যস্ত হয়ে গেছে ফুটবল বিশ্ব! আজও হলো একটা রেকর্ড। ২৭ মিনিটে দানি কারভাহালের ক্রসে দুর্দান্ত হেড করে জালে জড়িয়ে দেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড, তাতেই গড়লেন ইউরোপের শীর্ষ ছয় লিগ মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ড। স্পোর্টিং লিসবন, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও রিয়াল মাদ্রিদ মিলিয়ে এটি রোনালদোর ৩৬৭তম গোল। আজকের এই গোলে পেছনে পড়ে গেলেন জিমি গ্রিভস, ৪০ বছর ধরে এই রেকর্ডটা দখলে রেখেছিলেন সাবেক ইংলিশ ফরোয়ার্ড। ম্যাচে মাদ্রিদের আধিপত্যটাই স্কোরলাইনে ফুটিয়ে তুলল রোনালদোর গোলটা। অবশ্য দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই করিম বেনজেমার শট পোস্টে লেগে না ফিরলে দুই গোলেই এগিয়ে যেতে পারত রিয়াল। তখন হয়নি, তবে আরও বড় সুযোগ আসে ৫৫ মিনিটে। বক্সে লুকা মডরিচকে ফাউল করায় পেনাল্টি পায় রিয়াল। কিন্তু বিধিবাম! রোনালদোর শটটা ঠেকিয়ে দেন ভ্যালেন্সিয়া গোলকিপার আলভেস! রোনালদোর পেনাল্টি-দুঃখ ভুলে আরেকটি গোলের জন্য হন্যে হয়েই ছুটছিল রিয়াল। কিন্তু ধাক্কাটা (পড়ুন গোল) খায় ৮২ মিনিটে। প্রায় ২৫ গজ দূরে ফ্রি-কিক পায় ভ্যালেন্সিয়া, সেটি থেকে দুর্দান্ত বাঁকানো শটে গোল করেন পারেহো। জিনেদিন জিদান তখন নিশ্চিতই এক মহা উদ্বিগ্ন ব্যক্তি। বাংলাদেশ সময় আজ রাত পৌনে একটায় বার্সেলোনা খেলবে এসপানিওলের সঙ্গে। রিয়াল নিজেদের ম্যাচে ড্র করা মানে তো বার্সেলোনারই লাভ। শিরোপা লড়াইয়ে আরেকটু আত্মবিশ্বাস পাবেন মেসি-নেইমাররা। তা আর হতে দেননি মার্সেলো। গোলটা খাওয়ার পরই তেড়েফুঁড়ে ওঠে রিয়াল, একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে। আর কাজের কাজটা করে ফেলেন মার্সেলো। কী দুর্দান্ত গোল! বক্সের বাঁ দিক থেকে দৌড় শুরু করলেন, আঁকাবাঁকা সেই দৌড়ে দুই ভ্যালেন্সিয়া ডিফেন্ডারকে ছিটকে ফেলে চলে গেলেন বক্সের প্রান্তে। সেখান থেকে ডান পায়ের শটে বল জালে জড়িয়ে দিলেন ব্রাজিলিয়ান লেফট ব্যাক।
আরও একবার শেষ মুহূর্তে এসে হার না মানা মানসিকতার পরিচয়টাই দিল রিয়াল। এই জয়ে ৩৪ ম্যাচে ৮১ পয়েন্ট হলো রিয়ালের, সমান ম্যাচে বার্সার পয়েন্ট ৭৮। আজ রাতে বার্সা জিতলে তখন পয়েন্ট রিয়ালের সমান হবে, কিন্তু রিয়ালের হাতে একটা ম্যাচ থাকায় শিরোপা দৌড়ে এগিয়ে থাকবে জিদানের দলই।

Leave a Reply

Top