রাস্তার প্রায় অর্ধেকটা জুড়েই বাসের সারি – Live News BD, The Most Read Bangla Newspaper, Brings You Latest Bangla News Online. Get Breaking News From The Most Reliable Bangladesh Newspaper; livenewsbd.co
You are here
Home > প্রচ্ছদ > রাস্তার প্রায় অর্ধেকটা জুড়েই বাসের সারি

রাস্তার প্রায় অর্ধেকটা জুড়েই বাসের সারি

স্টাফ রিপোর্টার : রাস্তার প্রায় অর্ধেকটা জুড়েই ছিল বাসের সারি। কল্যাণপুর থেকে গাবতলী পর্যন্ত যানজট লেগেই থাকত। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে কল্যাণপুর-গাবতলী সড়ক অবৈধ পার্কিংমুক্ত করা হয়। বেশ কিছুদিন জায়গাটি পার্কিংমুক্ত থাকলেও ইদানীং সড়কে আবার বাস রাখা শুরু হয়েছে।  দূরপাল্লার বাস, পিকআপ, ট্রাক ও সিটি সার্ভিসের বাস কল্যাণপুর-গাবতলী সড়কের অর্ধেকের বেশি জুড়ে অবৈধভাবে রাখা হত। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আনিসুল হক ২০১৫ সালের ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে সড়কটি পার্কিং ও যানজটমুক্ত করার ঘোষণা দেন। ২০১৬ সালের ১ জানুয়ারি সড়কটিকে অবৈধ পার্কিংমুক্ত ঘোষণা করেন। এরপরে ওই সড়কটি অবৈধ পার্কিংমুক্তই ছিল।

গত রোববার কল্যাণপুর বাসস্ট্যান্ডে দেখা যায়, শ্যামলী, হানিফ, দেশ ট্রাভেলস এর বেশ কয়েকটি বাস সড়কের ওপর দাঁড়িয়ে আছে। এ ছাড়া সিটি সার্ভিসের বাসগুলোও যাত্রীর আশায় দাঁড়িয়ে আছে। শ্যামলী কাউন্টারের স্টাফ আনোয়ার হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ‘বাস বেশিক্ষণ থাকে না। এখান থেকে যাত্রী নিয়ে অন্য স্ট্যান্ডে নেওয়া হয়।’ কর্তব্যরত ট্রাফিক সার্জেন্ট সুলতান বলেন, দু-চার মিনিটের বেশি কোনো বাসই দাঁড়াতে দেন না। চালক ছাড়া খালি বাস দেখতে পেলে রেকার দিয়ে নিয়ে যান।

পাটুরিয়া-মানিকগঞ্জগামী পাটওয়ারি, আবদুল্লাহ, পদ্মাসহ কয়েকটি পরিবহনের বাস গাবতলীর বাস টার্মিনালের বাইরে মূল সড়কে দাঁড়ানো। ডেকে ডেকে যাত্রী তোলা হচ্ছে। টার্মিনালের দেয়ালে ফুটপাত ঘেঁষে পদ্মা পরিবহনের একটি ব্যানার টানানো সঙ্গে একটি টেবিল পাতা। সড়কে বাস রাখা প্রসঙ্গে পরিবহনটির একজন স্টাফ বলেন, বাস রাখার নিয়ম না থাকলেও তাঁরা ভেতরে জায়গা পান না।

টার্মিনালের মূল প্রবেশদ্বার থেকে এগিয়ে আমিনবাজার সেতুর দিকে এগোতে দেখা যায়, দূরপাল্লার বাস ইগল ও এস আর ট্রাভেলসের দুটি বাস দাঁড়ানো। টার্মিনালের এক দোকানি রহমত উল্লাহ বলেন, ‘আগে তো এই জায়গায় পার হইতে মানুষের খবর হইয়া যাইত। কিন্তু মেয়র আইসা সব তুইলা দেয়। কিন্তু কয়েক মাস ধইরা আবার শুরু হইছে।’ আগের মতো পরিমাণে বেশি না হলেও তাঁর আশঙ্কা এখনই ব্যবস্থা না নিলে সড়কটি আগের অবস্থায় ফিরে যাবে। তবে বললেন, পুলিশ থাকলে বেশিক্ষণ রাখে না।

ডিএনসিসির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম এ বিষয়ে প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের কানে এসেছে ওখানকার অবস্থা। সংশ্লিষ্ট লোকজন যাঁরা আছেন, তাঁদের বলা হয়েছে। মাত্রা বেড়ে গেলে অভিযান চালানো হবে।’

One thought on “রাস্তার প্রায় অর্ধেকটা জুড়েই বাসের সারি

Leave a Reply

Top