You are here
Home > জাতীয় > “রাজনীতি যার যার উন্নয়ন সবার”

“রাজনীতি যার যার উন্নয়ন সবার”

ইমন খানঃ

সাবেক কাউলতিয়া ইউনিয়ন ও বর্তমান সালনা সাংগঠনিক থানা ও সিটি কর্পোরেশন আঞ্চলিক জোন- ৫ এর আওতাধীন সকল নাগরিকদের সমন্বয়ে “রাজনীতি যার যার উন্নয়ন সবার” এর মত বিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সালনা বাজারের স্থানীয় চৌরাস্তায় বিকাল ৩ টায় কয়েজ হাজার লোকের সমাগমে ঐ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থেকে বক্তব্য রাখেন গাজীপুর সিটির মাননীয় মেয়র ও নগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। ৩০ শে অক্টোবর দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, দুপুর আড়াইটার পর থেকে একে একে সর্বদলীয় মিছিল এসে জড়ো হয় জনতা। তাদের সবার মুখে একটাই শ্লোগান রাজনীতি যার যার উন্নয়ন সবার। শ্লোগানে শ্লোগানে মূখরিত পুরো সালনা এলাকা। বিভিন্ন জন জরিপে সাক্ষাৎকারে বেড়িয়ে আসে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য,কাউলতিয়া ইউনিয়ন জম্ম হওয়া থেকে আজ পর্যন্ত একত্রে এত মানুষের সমাগম তারা দেখে নি। ঠিক বিকেল সাড়ে ৪ টায় অনুষ্ঠানস্থলে আসেন প্রধান অতিথি-দীর্ঘ ১৫ মিনিটের বক্তব্যে তিনি জানিয়ে দিলেন কি করেছেন,কি করবো,কি করবেন । কি করেছেনঃ  দায়িত্ব নেওয়ার ৯ মাসের মধ্যে কোনদিন কোন দাওয়াতে যান নি,ব্যক্তিগত কোন কাজে দেশে বা বিদেশে যান নি।  পুরো সময় টা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়,গনভবন,মন্ত্রণালয়,সিটি কর্পোরেশন দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার সাথে সিটি কর্পোরেশনের ফান্ড নিয়ে আলোচনা। কারন বিগত দুই মেয়র ২৬৪ কোটি টাকা ঋন করে ফান্ড খালি করে দিয়েছেন। রাস্তা ঘাট খাল বিলের উন্নয়ন করতে হলে ফান্ড দরকার অর্থাৎ টাকা দরকার। দীর্ঘদিন পরিশ্রম করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকার ফান্ড এনেছেন। এতে যারা তাকে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন তাদের নাম উল্লেখ্য করেছেন ঐ মতবিনিময় সভায়। কি করবোঃ ফান্ড পাওয়ার পর প্রতিটি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সাথে পরামর্শ করে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা করেছেন,কিভাবে রাস্তা প্রসস্থ করা যায়। মেয়র আরো বলেন,আমাদের প্রজম্ম শেষের দিকে,ভবিষ্যত প্রজম্মের জন্য কিছু করে যেতে চাই। এই জন্য রাস্তা বড় করতে হবে,আধুনিক শহর করতে হলে উন্নত শহরের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হবে। আমরা গরীব শহরে বসবাস করি,তাই রাস্তা করতে গিয়ে যদি কোন গরীব মানুষের বসতবাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ক্ষতি পুরন হয়,আমরা সাধ্যমত করে দেওয়ার চেষ্টা করবো,যা বর্তমানে অব্যহত আছে। তিনি বলেন,এই কাউলতিয়া হবে গাজীপুরের জন্য একটি বাসযোগ্য শহর,যা অন্য জোন অঞ্চলে করা কষ্টসাধ্য।কি করবেনঃ যে সমস্ত রাস্তা ঘাট ৩০/৪০ ফিট প্রসস্থ হবে আমরা নিজের মত করে ক্ষতিপূরন দিতেছি। বাকি ৯ টি রাস্তা ৬০ ফিট প্রসস্থ হবে এগুলো জন্য সরকার দ্বিগুণ ক্ষতিপূরণ দিবে। মেয়র বলেন,বিগত ৩০/৪০ বছরে যে উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হয়েছেন,আমি তা ফিরিয়ে দিতে চাই,তাই এই পরিষদকে সহযোগিতা করতে হবে। এত দিন যা পারে নাই আমি ১ বছরে তা পারবো না,তবে কথা দিচ্ছি আপনারা পাশে থাকলে আর সুযোগ দিলে অল্প সময়ের মধ্যে তা করে দেখিয়ে দিবো । আমাকে সমালোচনা হচ্ছে,কিন্তু যারা এতদিন ক্ষমতায় থেকেও কোন রাস্তা ১ফিট বাড়াতে পারে নাই,তাদের নিয়ে হচ্ছে না। প্রয়োজনে মেয়র আর হবো না,যতদিন এই চেয়ারে থাকি উন্নয়ন করে যাবো। প্রাথমিক ভাবে আপনাদের অসুবিধা হলেও এর সুফল পাবেন কয়েক বছর পর। আজ জায়গার বিগা প্রতি ১ কোটি টাকা হলেও রাস্তা প্রসস্থ হলে তখন এর মুল্য হবে ৩ গুন বেশি। গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সহ দপ্তর সম্পাদক মোঃ মাজহারুল ইসলাম এর সঞ্চলনায় ও ১৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ তানভীর আহমেদ এর সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন,বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দীন চেয়ারম্যান, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মোঃ আতাউল্লাহ মন্ডল,যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান এস এম মোকছেদ আলম,নগর আওয়ামী লীগের নেতা এম খালেকুজ্জামান, ১৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নগর কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ কাদির মন্ডল,নগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সদস্য মোঃ রিয়াজ মাহমুদ আয়নাল,৩৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও নগর সেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মনিরুজ্জামান মনির, ৩৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সেলিনা ইউনুছ,সাধারণ সম্পাদক ফাহিমা আক্তার হোসনা প্রমূখ। এর আগে শত শত নেতা কর্মী নিয়ে মিছিল সহকারে উপস্থিত হন,২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ শহিদুল ইসলাম শহিদ,২১ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এস এম ফারুক আহমেদ, ২২ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ নজরুল ইসলাম মল্লিক, ২৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাওলানা মনজুর হোসেন, ২২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ মোশাররফ হোসেন,  মহিলা কাউন্সিলর আয়শা আক্তার,আফসানা আক্তার,স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোঃ মোশাররফ হোসেন,এস এম ওয়াশিম। উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ সভাপতি রুহুল আমিন,স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা মোঃ বেলায়েত হোসেন লিটন,মোঃ রিপন, কায়সার আহমেদ।

Leave a Reply

Top