You are here
Home > জীবন-যাপন > যেভাবে সবুজ হয়ে উঠবেন

যেভাবে সবুজ হয়ে উঠবেন

স্টাফ রিপোর্টারঃ প্রকৃতির প্রিয় রং সবুজ। প্লেটভরা সবুজ শাকসবজি খাওয়া মানে শরীর সুস্থ রাখা। কারণ, এতে দরকারি খনিজ ও পুষ্টি উপাদান থাকে। হলুদ, লাল বা বেগুনি শাকসবজির মতো সবুজ শাকসবজিতেও প্রচুর দরকারি উপাদান থাকে, যা শরীরে নানা পরিবর্তন আনতে পারে। জেনে নিন সবুজ শাকসবজি খাওয়ার কয়েকটি কারণ:

চর্বি কম: সবুজ খাবারে চর্বি থাকে কম। এতে প্রচুর ভিটামিন থাকে, যা শরীরের অপ্রয়োজনীয় চর্বি দূর করতে পারে।

হজমের জন্য দরকারি: সবুজ সবজি হিসেবে ব্রকলি, বাঁধাকপি, সবুজ শাক ও শিমে প্রচুর আঁশ থাকে। এটি হজমের জন্য ভালো। এ ছাড়া পেট পরিষ্কার রাখে আঁশযুক্ত এ খাবার।

নতুন কোষ পুনর্জন্ম: সবুজ খাবারে ফলিক অ্যাসিড থাকে, যা শরীরে নতুন কোষ তৈরি ও ঠিক রাখে। মটরশুঁটি বা শিমজাতীয় খাবারে প্রচুর ফলিক অ্যাসিড থাকে।

চোখের জন্য ভালো: গাঢ় সবুজ শাকসবজিতে লুটেইন ও জিয়াক্সানথিন নামের ফাইটোকেমিক্যাল থাকে, যা চোখ ভালো রাখে। এ ছাড়া ক্যানসারের ঝুঁকি থেকে কমাতে পারে সবুজ শাকসবজি।

সবুজ শাকসবজি খেলে শরীর সুস্থ থাকে।সবুজ শাকসবজি খেলে শরীর সুস্থ থাকে।ক্যানসারবিরোধী উপাদান: কোয়ারসেটিন নামক বায়োফ্ল্যাভোনয়েড থাকে সবুজ শাকসবজিতে। এ ফ্ল্যাভোনয়েডসে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে, যা ক্যানসারবিরোধী উপাদান হিসেবে কাজ করে।

ডায়াবেটিসবিরোধী: ডায়াবেটিসের রোগীদের খাদ্য নিয়ন্ত্রণে খাবারের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স বা জিআই পরিমাপ করাটা গুরুত্বপূর্ণ। জিআই হলো গ্লাইসেমিক ইনডেক্স। কোনো খাবার পেটে যাওয়ার পর রক্তে মিশে গিয়ে ঠিক কী হারে রক্তের সুগার বাড়িয়ে দেয়, তারই ইনডেক্স বা সূচক এটি। যে খাবারের জিআই যত কম, তা তত ধীরে ও তত দেরিতে রক্তে মেশে এবং তত কম হারে রক্তের শর্করা বাড়ায়। সবুজ সবজিতে জিআই কম। যাঁরা টাইপ-টু ডায়াবেটিসে ভুগছেন, তাঁদের জন্য এটি দরকারি।

হাড় ও মাংসপেশির জন্য দরকারি: লৌহ আর ক্যালসিয়ামের অন্যতম উৎস সবুজ শাকসবজি। হাড় শক্ত করার পাশাপাশি মাংসপেশি ঠিক রাখে সবুজ খাবার।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়: সব ধরনের সবুজ খাবারের মধ্যে বিটা ক্যারোটিন থাকে, যা ভিটামিন এ হিসেবে রূপান্তরিত হতে পারে। এ কারণে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সবুজ শাকসবজি খাওয়ার বিকল্প নেই। তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া।.

সবুজ শাকসবজি খেলে শরীর সুস্থ থাকে।সবুজ শাকসবজি খেলে শরীর সুস্থ থাকে।

Leave a Reply

Top