You are here
Home > জাতীয় > মুসলমানদের জঙ্গি বানানোর আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মুসলমানদের জঙ্গি বানানোর আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক :

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, ‘মুসলমানদের জঙ্গি বানানোর একটা আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র চলছে, আর তাদের সঙ্গেই আমাদের জঙ্গিরা মাঝেমাঝে যোগাযোগের চেষ্টা করছে।’

আজ শনিবার রাজধানীর মহাখালীর তিতুমীর সরকারি কলেজ প্রাঙ্গণে আয়োজিত মাদক ও জঙ্গিবিরোধী সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।
ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গুলশান বিভাগ ওই সমাবেশের আয়োজন করে।
সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আজকে যত কিছু সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ—এসবের পেছনে বড় একটা পরিকল্পনা রয়েছে। বাংলাদেশ যে হঠাৎ করে অস্থির হয়ে উঠেছে তা নয়। এ জঙ্গিরা কারা। এরা ইসলামী শিবির, তারপরে হুজি, তারপরে জেএমবি, আনসারুল্লাহ বাংলা টিম বা আনসার আল ইসলাম নামে বিভিন্ন সময় এসেছে।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কিছু একটা ঘটলেই একটা গোষ্ঠী বলা শুরু করে এরা আইএস। আরে আইএস বলে তো বাংলাদেশের কোথাও কিছু খুঁজে পাইনি আমরা। এদের আইএস বলারও একটা কারণ আছে। বাংলাদেশের মানুষকে জঙ্গি বানাতে পারলে ইসলাম ধর্মকে জঙ্গি বানানোর ষোলোকলা পূর্ণ হবে। একের পর এক ইসলামি দেশকে জঙ্গি বানানো হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘আজকে পৃথিবীর যেখানেই যান তারা বলবে, সব মানুষই সন্ত্রাসী নয়, কিন্তু সব সন্ত্রাসীই মুসলিম। শুনে মাথা হেঁট হয়ে যায়। আমাদের শান্তির ধর্মকে জঙ্গির ধর্ম বানানো হচ্ছে।’
মুসলামানদের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক চক্রান্ত চলছে উল্লেখ করে সমাবেশের প্রধান বক্তা আইজিপি শহীদুল হক বলেন, ‘মুসলমানদের ধ্বংস করার একটি আন্তর্জাতিক চক্রান্ত এটি। মুসলমানদের গোটা বিশ্বে জঙ্গিদের ধর্ম হিসেবে উপস্থাপন করতে চায় তারা। আজ ইউরোপ-আমেরিকায় যান মুসলমান বললে সবাই বাঁকা চোখে তাকায়। তবে জঙ্গিদের আমরা যেভাবে দমন করতে পেরেছি, এটা বিশ্বের আর কেউ পারেনি। জঙ্গিরা আপনাদের আশপাশেই থাকে। জঙ্গিদের আস্তানা যাতে কোথাও না হয়, সে জন্য নানামুখী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’
ডিএমপির কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সমাবেশে স্থানীয় সাংসদ এ কে এম রহমতউল্লাহ, তিতুমীর কলেজের অধ্যক্ষ আবু হায়দার আহমেদ নাসের, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ওয়াকিল উদ্দীন আহমেদ, ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মফিজুর রহমান ও পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিশনার এস এম মোশতাক আহমেদ খান বক্তব্য দেন।

Leave a Reply

Top