You are here
Home > অর্থনীতি > ভারত থেকে ৩৭৮ কোটি টাকায় এক লাখ টন চাল আমদানি করছে সরকার

ভারত থেকে ৩৭৮ কোটি টাকায় এক লাখ টন চাল আমদানি করছে সরকার

স্টাফ রিপোর্টার : খাদ্য ঘাটতি মোকাবেলায় ভারত থেকে সরকারি পর্যায়ে এক লাখ টন সিদ্ধ চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। প্রতি টন চালের দাম ৪৫৫ ডলার হিসেবে মোট ব্যয় হবে ৩৭৭ কোটি ৬৪ লাখ টাকা। আজ বুধবার সচিবালয়ে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর সভাপতিত্বে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ সংক্রান্ত একটি ক্রয় প্রস্তাবসহ মোট ১৫টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বৈঠকে কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মেস্তাফিজুর রহমান।

খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চুক্তি অনুযায়ী ঋণপত্র খোলার ৬০ দিনের মধ্যে পুরো চাল সরবরাহ করবে ভারত। ১৫ হাজার টন চালের প্রথম চালান বাংলাদেশে পাঠাবে ঋণপত্র পাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে। ২০১৭ সালে উৎপাদিত চাল সরবরাহ করতে হবে ভারতকে। এই চালে পাঁচ শতাংশ ভাঙা দানাসহ অন্যান্য প্যারামিটারে কোনো ছাড় দেয়া হয়নি। তবে চালের আর্দ্রতার সর্বোচ্চ মাত্রা ১৩ শতাংশের বদলে ১৩ দশমিক পাঁচ শতাংশ স্থির করেছে উভয় পক্ষ। বৈঠক শেষে অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ভারত থেকে সরকারি পর্যায়ে এক লাখ টন সিদ্ধ চাল আমদানি সংক্রান্ত খাদ্য মন্ত্রণালয়ের একটি প্রস্তাব এর আগে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে অনুমোদন দেয়া হয়। এরপর আজ তা সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার কমিটি অনুমোদন করা হয়।

সূত্র জানায়, উৎপাদনের ঘাটতি মেটাতে ভিয়েতনাম থেকে আড়াই লাখ টন চাল সরবরাহ প্রক্রিয়া শেষ পর্যায়ে রয়েছে। কম্বোডিয়ার কাছ থেকে আড়াই লাখ টন চাল আমদানির চুক্তি হওয়ার পর ঋণপত্র খোলা হয়েছে। এছাড়া মিয়ানমার থেকে এক লাখ টন চাল আমদানির চুক্তি চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত ৫ অক্টোবর পর্যন্ত সরকারের গুদামে তিন লাখ ৬৬ হাজার টন চাল এবং এক লাখ চার হাজার টন গমসহ মোট খাদ্যশস্য মজুদের পরিমাণ চার লাখ ৭০ হাজার টন।

গতকালের বৈঠকে, আলাদা দু’টি ক্রয় প্রস্তাবের মাধ্যমে সরকারি পর্যায়ে কাতার থেকে ২৫ হাজার টন এবং সৌদি আরব থেকে ২৫ হাজার টন ইউরিয়া সার আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। এতে মোট ব্যয় হবে ১১ কোটি ২৮ লাখ ৩০ হাজার টাকা।

বৈঠকে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের ‘শতভাগ পল্লী বিদ্যুতায়নের জন্য বিতরণ নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ (ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগ) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ৬৫ হাজার ২৮২ কিলোমিটার কন্ডাক্টরসহ বিভিন্ন পণ্য ক্রয়ের একটি প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে ক্রয় কমিটি। এতে ব্যয় হবে ৩৫২ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। এছাড়াও বিদ্যুৎ বিভাগের তিনটি সাবস্টেশন নির্মাণের অপর একটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ২৫ কোটি ১০ লাখ টাকা। বৈঠকে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সাতটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এই সাতটি ক্রয় প্রস্তাবে ব্যয় হবে ১৭৫ কোটি ৬৯ লাখ টাকা।

Leave a Reply

Top