You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > ব্রীজের পার্শ্বের মাটি ধ্বসে ৭ গ্রামের জণগনের যাতায়াত বিচ্ছিন্ন

ব্রীজের পার্শ্বের মাটি ধ্বসে ৭ গ্রামের জণগনের যাতায়াত বিচ্ছিন্ন

মোঃ নুর আলম, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর):

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে ভেলামতি ব্রীজের পার্শ্বের মাটি ধ্বসে যাওয়ায় পুনঃ মেরামত না করায় ৭ গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক লোকজন যাতায়াত বিচ্ছিন্ন হওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ।
উপজেলার পুনট্টি ইউনিয়নের ভেলামতি নদীতে নির্মিত সুইস গেটটি বন্ধ থাকায় বন্যার পানি বেরুতে না পারায় নদীর উপর নির্মিত ব্রীজটির দক্ষিণ পার্শ্ব দিয়ে পানি বের হতে শুরু করলে গত ১৩ আগষ্ট সম্পুর্ন্যভাবে ধ্বসে যায়। ফলে নদীর ওপারের পুনট্টি, তুলশিপুর, কারেঙ্গাতলি, মথুরাপুর, শ্যামনগর, গমিরা, গুচ্ছগ্রামসহ ৭ গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক লোকজনের যাতায়াত বন্ধ হয়ে যায়। এতে চরম দুর্ভোগে পড়ে লোকজন। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুরে কামাল জানান, নদীর পানির ¯্রােতে ব্রীজটির পার্শ্ব অংশ সম্পুর্ন ধ্বসে গিয়ে জনগণের চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পড়ে। উপজেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদের কোন টাকা না থাকায় দ্রুত সংস্কার শুরু করা যাচ্ছেনা। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ গোলাম রব্বানী জানান, ওই রাস্তাটি সহ ক্ষতিগ্রস্থ অংশটুকু সংস্কার করতে আনুমানিক ৮ লক্ষাধিক টাকার প্রয়োজন। আপাতত ইউনিয়ন পরিষদের সহযোগিতায় ওইস্থানে বাঁশের সাকো নির্মান করে জনগণের চলাচলের ব্যবস্থা করা হবে, পরবর্তিতে বরাদ্দ পেলে পুরোটা সংস্কার করা হবে। তুলশিপুর গ্রামের হবিবর রহমান জানান, সুইস গেটটি বন্ধ থাকায় বন্যার ¯্রােতের পানি বেরুতে না পেরে পার্শ্বের নরম স্থান দিয়ে পানি বের হতে শুরু করে মাত্র ২ ঘন্টার মধ্যে ওই স্থানটি সম্পুর্ন্য ভেঙ্গে যায়। বর্তমানে আমরা ৫ কিমি ঘুরে আমতলি বাজারে যাতায়াত করছি। গাড়িযোগে যাতায়াতের রাস্তা না থাকায় প্রশাসনের কেউ ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শনে আসেনি। ওই গ্রামের মাঝাপাড়া এলাকার কাছাব উদ্দিন জানান, মাটির বাড়ি গুলি শতভাগ ভেঙ্গে গেছে। বর্তমানে ওই বাড়িগুলির লোকজন চরম দুর্ভোগে পড়েছে। এলাকাবাসি জরুরী ভিত্তিতে ওই ভেলামতি ব্রীজটি ভেঙ্গে দ্রুত পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থাসহ ক্ষতিগ্রস্ত অংশটুকু সং¯কার করার দাবি জানিয়েছেন।

Leave a Reply

Top