You are here
Home > জাতীয় > ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর ভ্যাট নেওয়ার পরিকল্পনা নেই’

‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর ভ্যাট নেওয়ার পরিকল্পনা নেই’

নিজস্ব প্রতিবেদক :

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়সহ শিক্ষার ওপর মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) আরোপের কোনো পরিকল্পনা সরকারের নেই।’

আজ শেরে বাংলানগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে সভাপতিত্বকালে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বার্তা সংস্থা বাসস জানিয়েছে, একনেক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘এ বিষয়টি সুস্পষ্ট করে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যে, শিক্ষা খাতের আরো বিকাশ ও জোরদারের এ ধরনের (বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওপর ভ্যাট আরোপ) পদক্ষেপের কোনো প্রয়োজন নেই। এ ধরনের কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হবে না।’

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর ভ্যাট আরোপে পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যাপারে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে একনেক বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।’

এর আগে সোমবার রাতে অর্থমন্ত্রী প্রাকবাজেট বৈঠকের পর সাংবাদিকদের বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় মালিকদের কাছ থেকে সরকার ভ্যাট আদায় করবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক সভায় ১৫ হাজার ৬৮৩ কোটি ২৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ১৬ টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। যার মধ্যে সরকার জোগান দেবে প্রায় পাঁচ হাজার ৭০৮ কোটি টাকা, প্রকল্প সাহায্য মিলবে প্রায় আট হাজার ৭৪০ কোটি টাকা। বাকি প্রায় এক হাজার ২০০ কোটি টাকা মিলবে সংস্থার নিজস্ব অর্থায়নে।

সভায় উঠে আসে সোমবার দেওয়া অর্থমন্ত্রীর একটি বক্তব্যের প্রসঙ্গও। কিন্তু এটি তাঁর নিজস্ব বক্তব্য উল্লেখ করে সরকার এমন কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সভা শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘গতকাল রাতে শুনতে পেলাম মাননীয় অর্থমন্ত্রীকে কোট (উদ্ধৃতি) করে বলা হচ্ছে তিনি যে বাজেট দেবেন তাতে ভ্যাট বসাবেন, প্রাইভেট ইউনিভার্সিটির মালিক যাঁরা, ট্রাস্টির সঙ্গে সম্পৃক্ত, যাঁরা উদ্যোক্তা তাঁদের ওপর ভ্যাট ধরা হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শুনলেন, তিনি সুস্পষ্টভাবে বললেন এ ধরনের কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না। এ মুহূর্তে আমাদের ভ্যাট বসানোর কোনো প্রয়োজন নেই।’

একনেক সভায় অনুমোদন পাওয়া প্রকল্প ব্যয়ের প্রায় দুই তৃতীয়াংশই ব্যয় হবে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের সঞ্চালন অবকাঠামো নির্মাণে।

এ ছাড়া কুমিল্লা, নেত্রকোনাসহ চারটি জেলার সড়ক ও মহাসড়ক উন্নয়নেও প্রায় এক হাজার কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Top