You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > বেলকুচিতে ভূমি দস্যুদের খপ্পরে দিশেহারা দরিদ্র মতিয়ার

বেলকুচিতে ভূমি দস্যুদের খপ্পরে দিশেহারা দরিদ্র মতিয়ার


সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার বেলকুচির চর গ্রামের মৃত জামাত আলীর পুত্র মতিয়ার রহমানের পৈত্তিক সম্পত্তির আর এস খতিয়ানের ভুল হওয়ায় বেদখল করে রেখেছে দেলুয়া গ্রামের আমজাদ সরকারের পুত্র বাবু সরকার ও আক্তার সরকারের পুত্র নজরুল সরকার । অভিযোগে জানাযায়, বেলকুচি মৌজার দাগ নং হাল ৯৬১ সাবেক ৪২১ জমির পরিমান ৮৪ শতাংশ ও ১৫৫ দাগের ৪৮ শতাংশ মোট ১৩২ শতাংশ জমির পৈত্তিক সম্পত্তির অংশীদার সূত্রে আর এস রেকর্ডে মোঃ মতিয়ার রহমানের নামে থাকার কথা থাকলেও ভুল বসত আলী আহম্মেদ গং দের নামে রেকর্ড হয়।
উক্ত জমির এস এ ৪২১ দাগের ১৩২ , আর এস ১৪৭ শতাংশ জমির রেকর্ড সংশোধনের জন্য মোঃ মতিয়ার রহমান ২০০৬ সালে জেলা জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন । মামলাটির রায়ে আদালত আর আস খতিয়ান বলবত রেখে মামলা নিষ্পত্তি করেন । এরপর বাদী উচ্চ আদালতে (হাই কোর্ট) রিট পিটিশন দাখিল করে জাহার নং ৭৩৪৪/২০১৭ । আদালত নিম্ন আদালতের রায় ৬ মাসের জন্য স্থগিত করেন । পুনরায় বাদীর আবেদনের প্রেক্ষিতে আবারো ১ বছরের জন্য সময় বৃদ্ধি করে স্থগিতাদেশ দেন আদালত । এই রায়ের আদেশ অমান্য করে বিবাদী পক্ষ বাবু ও নজরুলের যোগসাজশে এলাকার প্রভাবশালী আব্দুল হামিদ আকন্দের পুত্র নুরুল ইসলাম,আল আমীন, আব্দুল আওয়াল ও আমজাদ আকন্দের পুত্র আলীম ,দুলাল আকন্দের পুত্র আলী আকবার, রওশন আলীর পুত্র নুরুল ইসলাম এদের প্রত্যক্ষ মদদে ও এলাকার ভূমি দস্যু কুচক্রি মহলের ইন্দনে অসহায় মতিয়ার রহমানের জমি বেদখল করে চাষাবাদ করছে বলে অভিযোগ উঠেছে ।
এ বিষয়ে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে বেলকুচি থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করে বাদী । বিবাদী পক্ষ প্রভাবশালী হওয়ায় উচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশ অমান্য করে বহাল তবিয়তে মতিয়ারের প্রায় ৫০ শতাংশ জমি বেদখল করে রেখেছে । এবং বিভিন্ন ভাবে বাদীর পরিবারের সদস্যদের প্রান নাশের হুমকি দিচ্ছে বলে জানাযায় ।
এ বিষয়ে বেলকুচি থানার এস আই মুক্তার হোসেন জানান, ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে ।

Leave a Reply

Top