You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > বেলকুচিতে এসএসসি ফরম পুরনে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ, শিক্ষা অফিসারের ব্যাবস্থা গ্রহনের আশ্বাস

বেলকুচিতে এসএসসি ফরম পুরনে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ, শিক্ষা অফিসারের ব্যাবস্থা গ্রহনের আশ্বাস

খন্দকার মোহাম্মাদ আলী ,সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি :


সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার তামাই বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি ফরম পুরনে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।
এ বিষয়ে, হাইকোর্টের নির্দেশনা থাকলেও তা আমলে নিচ্ছে না উপজেলার অনেক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি । অক্টোবর মাসের ৩০ তারিখে উচ্চ আদালত থেকে এস,এস,সি পরীক্ষার ফর্মপূরনে অতিরিক্ত অর্থ না নেওয়ার জন্য শিক্ষক ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটি কে নির্দেশনা দিয়ে একটি রুল জারি করে আদালত ।
উচ্চ-আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী মানবিক বিভাগের জন্য বোর্ড ফি ও কেন্দ্র ফি সহ নিয়মিত শিক্ষার্থীদের ১৬৫০, অনিয়মিত ১৭৫০। বানিজ্যিক বিভাগের জন্য নিয়মিত ১৬৫০,অনিয়মিত ১৭৫০,এবং বিজ্ঞান বিভাগের জন্য নিয়মিত ১৭৭০ অনিয়মিত ১৮৭০ টাকা সকল সরকারি, এমপিও এবং নন-এমপিও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের টাকা নির্ধারন করে দেওয়া হয়েছে।
সরোজমিনে উপজেলার তামাই বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখা যায় প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে এস,এস,সি পরীক্ষার ফর্ম পূরণের জন্য ৩ হাজার ২ শত থেকে ৩ হাজার ৪শত টাকা নেয়া হয়েছে এবং তাদের সাবধান করে দেয়া হয়েছে কাওকে না বলার জন্য । এ বছর বিদ্যালয়ে এস,এস,সি নির্বাচনি পরিক্ষায় মোট ১৭৬ জন অংশ গ্রহন করে এর মধ্যে ৩৪ জন শিক্ষার্থী পাশ করেন । বাকি ১৪২ জনকে ফরম পুরন করতে না দেয়ায় তাদের অবিভাবকের চাপের মুখে পরে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও পরিচালনা কমিটি । এর পর ২ বার নির্বাচনি পরীক্ষা নেয়া হয় । এতেও অধিকাংশ ছাত্র ছাত্রী উক্তির্ণ না হওয়ায় একাধিক বিষয়ে ফেল করেও অতিরিক্ত টাকার বিনিময়ে ফরম ফিলাপ করছে শতভাগ ছাত্র ছাত্রীরা । এ বিষয়ে অবিভাবকরা দোষারোপ করলেন বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের । এ বিদ্যালয়ে লেখা পড়ার মান ভাল না তাদের সারা বছরের উদাশিনতার কারনেই এসএসসি পরিক্ষার্থীরা ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে ।
তামাই বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণীর মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থী ছুরাইয়া ও লায়লা জানান, এসএসসি ফরম পূরণের জন্য তাদের প্রতি জনের নিকট থেকে ৩হাজার ৪শত টাকা নিলেও দেওয়া হচ্ছে না টাকা আদায়ের রশিদ ।
এ বিষয়ে তামাই বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল হামিদ সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি উত্তেজিত হয়ে বলেন আপনাদের কোন তথ্য দিতে পারবোনা । আমার ইচ্ছা হলে ৩ হাজার ৪ শত কেন ৫ হাজার টাকাও নিতে পারি । সেটা শিক্ষা অফিস ও শিক্ষা বোর্ডের সাথে আমি বুজবো । দাম্ভিকতার সাথে তিনি আরোও বলেন বেলকুচিতে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই এভাবেই টাকা আদায় করা হচ্ছে , সাংবাদিকরা যা পারে করুক ।
বেলকুচি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এসএম গোলাম রেজা জানান, অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের কোন সুজোগ নেই । আমরা প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চিঠি দিয়েছি । এর পরেও যদি কেও অতিরিক্ত অর্থ আদায় করে তবে তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে ।
এ বিষয়ে বেলকুচি উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোঃ ওলিউজ্জামান মুঠোফোনে বলেন , তামাই বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ফরম পুরনে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ পেয়েছি এ বিষয়ে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে ।

Leave a Reply

Top