You are here
Home > জাতীয় > বিমসটেক অঞ্চলে সৌর বিদ্যুৎ গ্রিড চালুর প্রস্তাব বাংলাদেশের

বিমসটেক অঞ্চলে সৌর বিদ্যুৎ গ্রিড চালুর প্রস্তাব বাংলাদেশের

বিমসটেকভুক্ত অঞ্চলে সৌর বিদ্যুৎ গ্রিড ও যাত্রীবাহী জাহাজ চালুর প্রস্তাব করেছে বাংলাদেশ। বিমসটেক সম্মেলনের শেষ দিন শুক্রবার বিমসটেক লিডার্স রিট্রিট সেশনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই প্রস্তাব দেন। কাঠমান্ডুর হোটেল সোয়ালটি ক্রাউনি প্লাজায় এই সেশন অনুষ্ঠিত হয়।

সেশন শেষে পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। এদিকে দুই দিনের নেপাল সফর শেষে শুক্রবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরেছেন। খবর বাসস ও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের।

পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক জানান, আঞ্চলিক, আন্তর্জাতিক ও বাংলাদেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিমসটেকের সদস্য দেশের নেতাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আলোচনা হয়েছে। দেশগুলোর মধ্যে ব্যবসা, বিনিয়োগ, বিদ্যুৎ উৎপাদন-বিতরণ এবং বিদ্যুৎ এক দেশ থেকে সদস্য অন্য দেশে কেনাবেচাসহ সার্বিক বিষয়ে নেতারা বিস্তারিত আলোচনা করেছেন। এসব বিষয়ে পর্যালোচনা করতে এবং কোন দেশে কী পরিমাণ বিনিয়োগ হবে অথবা কোন দেশ কী পরিমাণ বিদ্যুৎ উৎপাদন ও রফতানি করতে পারবে, তা ঠিক করতে একটি যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনেও নেতারা সম্মত হয়েছেন।

আলোচনাকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমুদ্রপথে বিমসটেক ক্রুজ চালু করার প্রস্তাব দেন। নেপাল ও ভুটান প্রয়োজনে বাংলাদেশের সমুদ্রবন্দর ব্যবহার করতে পারে বলেও তিনি জানান। এছাড়া নবায়নযোগ্য জ্বালানি নিয়েও তাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে।

পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক জানান, সৌর বিদ্যুতের জন্যও আঞ্চলিক গ্রিড করার প্রস্তাব দিয়েছেন শেখ হাসিনা। কারণ এ অঞ্চলের অনেক দেশেই দীর্ঘ সময় সূর্যালোক পাওয়া যায়। নেপাল ও ভুটানের যথেষ্ট পরিমাণ জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের সুযোগ রয়েছে এবং তারা প্রতিবেশী দেশগুলোয় তা রফতানি করতে পারে। বিদ্যুৎ কেনাবেচার মতো বিষয়ে বিমসটেক দেশগুলো এর আগে পদক্ষেপ নেয়নি। তবে এবারের রিট্রিট সেশনে নেতাদের আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে এ খাতে বড় ধরনের সহযোগিতার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে।

সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ব্যবসা ও বিনিয়োগ কিছুটা কমে যাওয়া প্রসঙ্গে শহীদুল হক বলেন, মুক্তবাণিজ্য ক্ষেত্র বাড়াতে নেতারা আলোচনা করেছেন।

এদিকে নেপালে বিমসটেকের চতুর্থ শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিয়ে শুক্রবার দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ৩৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

এর আগে নেপালের স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় ভিভিআইপি ফ্লাইটটি ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে। এ সময় নেপালের উপপ্রধানমন্ত্রী ঈশ্বর পোখারেল এবং নেপালে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাশফি বিনতে শামস প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান। বৃহস্পতিবার কাঠমান্ডু যান প্রধানমন্ত্রী।

বিমসটেক সম্মেলনে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তবাণিজ্য অঞ্চল সৃষ্টি, বিনিয়োগ ও জ্বালানি খাতে যৌথ প্রচেষ্টা, জনগণের মধ্যে যোগাযোগ এবং অর্থায়ন প্রক্রিয়া গড়ে তোলার মাধ্যমে বিমসটেক ফোরামে সহযোগিতা সম্প্রসারণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। সম্মেলনের ফাঁকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠক করেন। শেখ হাসিনা ও বিমসটেক নেতারা নেপালের রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভাণ্ডারির সঙ্গেও সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

উল্লেখ্য, উপআঞ্চলিক সংস্থা বিমসটেক ১৯৯৭ সালের ৬ জুন ব্যাংকক ঘোষণার মধ্য দিয়ে গঠিত হয়। এই জোটের সদস্য দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে- দক্ষিণ এশিয়ার বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, নেপাল ও শ্রীলংকা এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মিয়ানমার ও থাইল্যান্ড।

Leave a Reply

Top