বাংলাদেশের জয় নিয়ে যা বললেন ইয়ান চ্যাপেল – Live News BD, The Most Read Bangla Newspaper, Brings You Latest Bangla News Online. Get Breaking News From The Most Reliable Bangladesh Newspaper; livenewsbd.co
You are here
Home > খেলাধুলা > বাংলাদেশের জয় নিয়ে যা বললেন ইয়ান চ্যাপেল

বাংলাদেশের জয় নিয়ে যা বললেন ইয়ান চ্যাপেল

ক্রিয়া প্রতিবেদকঃ বাংলাদেশের কাছে অস্ট্রেলিয়ার পরাজয় সম্পর্কে বলতে গিয়ে টাইগারদের সাফল্য সম্পর্কেও মন্তব্য করেছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ক্রিকেটার ইয়ান চ্যাপেল। ক্রিকেটের সবচেয়ে পরিচিত ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফোতে তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের অর্জনকে খাটো করে দেখা উচিত নয়। এটা তাদের রেকর্ডে আরেকটি বড় সাফল্য। এই জয় নিশ্চিত করেছে, তারা অবশেষে শীর্ষ দলগুলোর বিরুদ্ধে প্রতিযোগিতামূলক মাত্রায় পৌঁছাতে পেরেছে। তিনি অবশ্য বাংলাদেশকে রিলাক্স না পরামর্শও দিয়েছেন। তিনি বলেন, আহত অস্ট্রেলিয়ান দল বিপজ্জনক প্রতিপক্ষ। তারা হেরে যাওয়ায় তারা নিঃসন্দেহে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করবে।

তিনি বলেছেন, মিরপর টেস্টে বাংলাদেশের কাছে অস্ট্রেলিয়ার ধুঁকে ধুঁকে পরাজিত হওয়াটা অবাক কোনো ব্যাপার ছিল না। বরং কয়েক বছর ধরে তারা যে স্থবির অবস্থার মধ্যে ছিল, তাতে করে এই পরাজয় বিস্ময়কর নয়। তবে তার মতে, একটি ভুল তাদের এই পরাজয় অনিবার্য করে তুলেছিল। সেটা হলো সিরিজের আগে কোনো প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট না খেলা।

তিনি বলেন, এশিয়ান কন্ডিশনে ভালো স্পিন বোলিংয়ের মুখে অস্ট্রেলিয়া কোনোকালের ভালো করে না। তার উপর এবারের সফরের আগে বেতনভাতা নিয়ে লম্বা সময় ধরে বোর্ডের সাথে বিরোধ চলছিল। তারপর আবার তারা একটা প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচও খেলেনি।
তিনি মাঠে পানির অজুহাতে অনুশীলন ম্যাচটি বাতিল করার কথাও উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশের জয় : বিশ্ব মিডিয়ায় যা লেখা হয়েছে

বিশ্ব ক্রিকেটে বাংলাদেশ এক সময় ‘ছোট’ ও দুর্বল দল হিসেবেই পরিচিত ছিল। টাইগাররা গত দু’বছরে ‘শক্তিশালী’ দল হিসেবে আবির্ভুত হয়েছে। গত দু’বছর ধরে বাংলাদেশ দল ধারাবাহিকভাবে ভাল খেলে আসছে। নিজ মাঠে শক্তিশালী ভারত, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকাকে ওয়ানডে সিরিজে পরাজিত করার পর টাইগাররা এখন টেস্ট ক্রিকেটেও বড় বড় দলের বিপক্ষে জয় পেতে শুরু করেছে।

লংগার ভার্সনে এতদিন কেবলমাত্র দুর্বল জিম্বাবুয়ে কিংবা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছে। কিন্তু গত বছর টাইগাররা প্রথমবার টেস্ট ক্রিকেটে শক্তিশালী ইংল্যান্ড দলকে হারিয়েছে। এরপর এবছর শ্রীলংকা সফরে নিজেদের শততম টেস্টে টাইগাররা হারিয়েছে স্বাগতিক লংকানদের। ইংল্যান্ড এবং শ্রীলংকাকে হারানোর পর লংগার ভার্সনে নিজেদের ধারাবাহিক পারফরমেন্স অব্যাহত রেখেছে মুশফিকুর রহিমের নেতৃত্বাধীন দলটি। তারই ধারাবাহিকতায় দীর্ঘ ১১ বছর পর এবারে বাংলাদেশ সফরে আসা বিশ্ব ক্রিকেটের পরাশক্তি অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়েছে। টেস্ট ক্রিকেটে প্রথমবার অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে স্মরণীয় জয় পেয়েছে বাংলার দামাল ছেলেরা। সফরকারী অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ। বুধবার মিরপুর শেরে-বাংলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ২০ রানে হারায় টাইগাররা। এ ম্যাচে জয়ের জন্য ২৬৫ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে ২ উইকেটে ১০৯ রান নিয়ে চতুর্থ দিন মাঠে নামে অস্ট্রেলিয়া। আগের দিনের অপরাজিত দুই ব্যাটসম্যান ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার এবং অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ যেভাবে ব্যাটিং করছিলেন তাতে অনেকের মতেই অস্ট্রেলিয়ার জয় ছিল সময়ের ব্যপার মাত্র। কিন্তু বাংলাদেশের স্পিনাররা মাত্র ৮৬ রানে অসিদের শেষ ৮ উইকেট শিকার করে দীর্ঘ দিন টেস্ট ক্রিকেটের শীর্ষে থাকা অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দিয়ে ক্রিকেটে রচনা করে নতুন ইতিহাস। বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম পরাশক্তিকে হারিয়ে দেয়ায় বাংলাদেশ দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বিশ্বের সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেট তারকারা। কেবলমাত্র ক্রিকেট তারাকারাই নয়, বিশ্ব গণমাধ্যমও প্রশংসা করেছে মুশফিকের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ দলের। নিজেদের ভেরিফাইড অ্যাকাউন্টে বাংলাদেশের প্রশংসা করে টুইট করেন মাইকেল ক্লার্ক থেকে শুরু করে শচিন টেন্ডুলকার, ওয়াসিম আকরামসহ আরও অনেকে।

বিস্ময় প্রকাশ করে অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক ক্লার্ক বলেন, ‘অভিনন্দন বাংলাদেশ। কখনো ভাবিনি এমন টুইট আমাকে কখনো করতে হবে। তবে, এবার কৃতিত্বটা বাংলাদেশকে দিতেই হবে।’ গতরাতে স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে ৫ উইকেটে হারায় সফরকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আজ অস্ট্রেলিয়াকে হারালো বাংলাদেশ। তবে দুই জয়কেই অঘটন বলছেন ভারতের সাবেক মাস্টার ব্লাস্টার ব্যাটসম্যান শচিন টেন্ডুলকার। তিনি বলেন, ‘দুই দিনে দুই আপসেট। বাংলাদেশের অনুপ্রেরণাদায়ক এক পারফরম্যান্স। টেস্ট ক্রিকেট এখন সমৃদ্ধির পথে।’

শুধুমাত্র বিশ্বের অন্যান্য দলের খেলোয়াড়রাই বাংলাদেশের প্রশংসা করেননি। নিজ দেশের প্রশংসা করে টুইট করেছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাও, ‘সম্ভবত তামিম এখন বিশ্ব ক্রিকেটের সেরা ওপেনার। তাইজুল বোলিংয়ে দারুণ একজন সঙ্গী। মিরাজও দারুণ। অধিনায়ক মুশফিক এখন আগের থেকে অনেক পরিপক্ক। মাঠে দলকে অনুপ্রেরণা যোগায়। আর সাকিব একজন জীবন্ত কিংবদন্তী, তুমি যখন লড়াই করো, সেটা তোমার মত করে আর কেউ পারে না। তোমার জন্মই হয়েছে ২২ গজের জন্য।’

ভারতের আরেক সাবেক মারকুটে ওপেনার বিরেন্দার শেবাগ বলেন, ‘ওয়েল ডান বাংলাদেশ। অস্ট্রেলিয়াকে হারানো সত্যি বড় এক অর্জন।’
পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক ওয়াসিম আকরাম টুইট করেছেন, ‘বাংলাদেশকে যখন অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে দেখি তখন সত্যিই বলতে হয়, টেস্টই ক্রিকেটের সত্যিকারের ফরম্যাট।’ বাংলাদেশের প্রশংসা করে টুইট করেছেন সাবেক শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক মাহেলা জয়াবর্ধনে, ‘দারুণ খেলেছো বাংলাদেশ। ঐতিহাসিক এক টেস্ট জয়। অসাধারণ এক ম্যাচ।’ ভারতের বর্তমান দলের ওপেনার শিখর ধাওয়ান বলেন, ‘টেস্ট ক্রিকেটে দুর্দান্ত একটি খেলা। অভিনন্দন বাংলাদেশকে।’ ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান লিখেছে, ‘অস্ট্রেলিয়া দলের আত্মসমর্পণে ঐতিহাসিক জয় পেল বাংলাদেশ।’ ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার নিজস্ব ওয়েবসাইট ক্রিকেট ডট কম এইউ লিখেছে, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টাইগারদের প্রথম জয়।’ এবিসি নিউজ লিখেছে, ‘সিরিজ উদ্বোধনী ঢাকা টেস্টে ২০ রানে জয় পেয়ে প্রথমবার অস্ট্রেলিয়াকে হারালো বাংলাদেশ।’ অস্ট্রেলিয়ান সিডনি মর্নিং হেরাল্ডের শিরোনাম ছিল, ‘অসিদের প্রথমবারের মত হারিয়ে ইতিহাস গড়লো টাইগাররা।’

গ্লাডস্টোন অবজারভারের ভাষ্য, ‘বাংলাদেশের কাছে হারলো অস্ট্রেলিয়ানরা।’ ‘টাইগাররা প্রথমবার অস্ট্রেলিয়াকে হারালো’ উল্লেখ করে সুপার স্পোর্টস লিখেছে, ‘ম্যাচে সাকিব আল হাসানের দ্বিতীয় ১০ উইকেট শিকারের সুবাদে চার দিনের মধ্যেই অস্ট্রেলিয়াকে ২০ রানে হারিয়ে ঐতিহাসিক জয় পেল বাংলাদেশ।’ যুক্তরাজ্যের টেলিগ্রাফ পত্রিকার শিরোনাম ছিল, ‘ড্রেসিং রুমে ব্যাট দিয়ে আঘাত করে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম জয় উদযাপন করলো বাংলাদেশ।’ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী স্টেডিয়ামে উপস্থিত থেকে জয় প্রত্যক্ষ করলেন উল্লেখ করে হেরাল্ড সান লিখেছে, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে নিজ দেশের ক্রিকেট দলের ঐতিহাসিক জয় উদযাপন করলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’

জনপ্রিয় ওয়েবসাইট মিররের শিরোনাম, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে ইংল্যান্ডের বিস্ময়কর হারের কয়েক ঘন্টা পর মিরপুরে ২০ রানে হেরে গেছে অস্ট্রেলিয়া।’
স্কটল্যান্ড কেন্দ্রিক নিউজ পোর্টাল দ্য স্কটসম্যানের শিরোনাম, ‘বাংলাদেশী টাইগাররা অস্ট্রেলিয়াকে হারানোয় উল্লসিত ঢাকা।’ সাকিবকে ম্যাচের নায়ক উল্লেখ করে তারা আরো লিখেছে, ‘প্রথম ইনিংসে ৮৪ রানের পর ১৫৩ রানে ১০ উইকেট শিকার করা সাকিব ছিলেন টাইগারদের নায়ক।’
অস্ট্রেলিয়া কেন্দ্রিক নিউজ পোর্টাল এসবিএস দেনা-পাওনা ইস্যুতে অস্ট্রেলিয়ান খেলোয়াড়দের সমালোচনা করে লিখেছে, ‘লড়াই করে আকর্ষণীয় বেতন-ভাতা চুক্তি নিশ্চিত করার পর বাংলাদেশের কাছে চার দিনেই হেরে গেল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটাররা।’ ভারত কেন্দ্রিক জনপ্রিয় নিউজ পোর্টাল টাইমস অব ইন্ডিয়া বাংলাদেশের জয়কে টেস্ট ক্রিকেটে টাইগারদের আগমন হিসেবে বিবেচনা করে লিখেছে, ‘কঠিন লড়াই করে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয় দিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে নিজেদের আগমন বার্তা দিল বাংলাদেশ।’

বাংলাদেশ দলের জয়কে আপসেট হিসেবে বিবেচনা করা যাবে না উল্লেখ করে নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস শিরোনাম দিয়েছে, ‘যে কারণে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের জয় অঘটন নয়।’ যুক্তরাজ্য কেন্দ্রিক স্পোর্টস নিউজ পোর্টাল ইউরোস্পোর্টসের শিরোনাম, ‘ঢাকায় নৈপুণ্য দিয়ে আওয়াজ তুললেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান।’ একই সঙ্গে সাকিবের ভুয়সী প্রশংসা করে লিখেছে, ‘মিরপুর স্টেডিয়ামে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে অলরাউন্ড নৈপুণ্য প্রদর্শন করে দলের জয়ে ভূমিকা রেখে নিজের কথা রেখেছেন সাকিব।’ পাকিস্তান ভিত্তিক ওয়েবসাইট দ্য নেশনের শিরোনাম, ‘সাকিবের ১০ উইকেট শিকারে অস্ট্রেলিয়ার বিপেক্ষ বাংলাদেশের ঐতিহাসিক জয়।’ আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের শিরোনাম, ‘প্রথম টেস্টে আন্ডারডগদের থাবায় কুপোকাত অস্ট্রেলিয়া।’ ওয়েস্ট অস্ট্রেলিয়ানের শিরোনাম, ‘ওয়ার্নারের সেঞ্চুরি অস্ট্রেলিয়াকে রক্ষা করতে পারেনি।’ দক্ষিণ আফ্রিকা কেন্দ্রিক টাইমস লাইভ তাদের শিরোনাম করেছে, ‘সাকিব নৈপুন্যে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম জয়।’ স্পোর্টসে ২৪-এর ভাষা, ‘প্রথমবার ঐতিহাসিক টেস্ট জয়ে অস্ট্রেলিয়াকে আহত করলো বাংলাদেশ।’ পাকিস্তান ভিত্তিক ওয়েবসাইট খলজিটাইমসের শিরোনাম, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট জয়ে ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশ।’ নিউজিল্যান্ড হেরাল্ডের শিরোনাম ছিল, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ঐতিহাসিক জয় পেল বাংলাদেশ।’

Leave a Reply

Top