বরিশালে কৃষকলীগ নেতা হত্যা: ১ জনের ফাঁসি, যাবজ্জীবন ২ – Live News BD, The Most Read Bangla Newspaper, Brings You Latest Bangla News Online. Get Breaking News From The Most Reliable Bangladesh Newspaper; livenewsbd.co
You are here
Home > দূরনীতি ও অপরাধ > বরিশালে কৃষকলীগ নেতা হত্যা: ১ জনের ফাঁসি, যাবজ্জীবন ২

বরিশালে কৃষকলীগ নেতা হত্যা: ১ জনের ফাঁসি, যাবজ্জীবন ২

আদালত প্রতিবেদকঃ বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুর ইউনিয়ন কৃষকলীগ সভাপতি শামসুল আলম মৃধা হত্যা মামলার রায়ে পলাশ প্যাদা নামে এক আসামীর ফাঁসি এবং মাদক বিক্রেতা মরিয়ম ও মাদক সেবী জয়নাল আবেদীনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরো ৬ মাস করে দন্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। বরিশালের ১ম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক সুদীপ্ত দাস সোমবার আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন।

নিহত শামসুল আলম মৃধা কৃষকলীগের রাজনীতি ছাড়াও মাদক বিরোধী আন্দোলনের উপজেলা সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিপলাশ প্যাদা একই উপজেলার পশ্চিম রাজগুরু এলাকার আব্দুল কালাম প্যাদার ছেলে। যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত মরিয়ম বেগম একই উপজেলার দক্ষিণ ভূতেরদিয়া গ্রামের আব্দুল হালিম চৌধুরীর স্ত্রী এবং অপর দন্ডপ্রাপ্ত জয়নাল আবেদীন পূর্ব রাজগুরু এলাকার মৃত গণি ভূঁইয়ার ছেলে।

আদালত সূত্র জানায়, বাবুগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় মাদক ব্যবসা করতো মরিয়ম। মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে কমিটি গঠন করেন কৃষকলীগ নেতা শামসুল আলম। এরপর র‌্যাব গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মরিয়মকে ১২ কেজি গাঁজা সহ আটক করে। এছাড়া মরিয়মের জাল টাকারও ব্যবসা ছিল। মরিয়মের ধারনা শামসুল আলম বিষয়টি র‌্যাবকে জানিয়েছে। এতে মাদক ব্যবসায়ীরা তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়।

২০১৩ সালের ১৬ মার্চ বেলা ২টার দিকে মাদক ব্যবসায়ীরা পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী শামসুল আলমকে তার বাসা থেকে ডেকে সুগন্ধা নদীর পাড়ে নির্জন স্থানে ডেকে নেয়। নদীরে পাড়ে যাওয়ার সাথে সাথে তাপস ইট দিয়ে শামসুলের মাথায় আঘাত করে। এ সময় শামসুল মাটিতে পড়ে গেলে মরিয়ম গামছা দিয়ে গলায় ফাঁস দেয়। জয়নাল আবেদীন তার পা চেপে ধরে। মৃত্যু নিশ্চিত করতে তাপস ইট দিয়ে শামসুলের মাথায় আঘাতের পর আঘাত করে মগজ বের করে ফেলে। এরপর তারা ওই স্থানে লাশ ফেলে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় নিহত শামসুল আলমের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম বাদী হয়ে উল্লেখিত ৩ জনের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বরিশাল সিআইডি’র উপ-পরিদর্শক রেজাউল হক ২০১৩ সালের ১৭ নভেম্বর ওই ৩জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে এই মামলার অভিযোগপত্র জমা দেন। পরে আদালতে ১০ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বিচারক ওই রায় ঘোষণা করেন।

Leave a Reply

Top