You are here
Home > সারা বাংলা > প্রাকৃতিক দূর্যোগ > ফোন করলেই খাবার পৌছে দিচ্ছে “হ্যালো ছাত্রলীগ”

ফোন করলেই খাবার পৌছে দিচ্ছে “হ্যালো ছাত্রলীগ”


গাজীপুর প্রতিনিধিঃ
ফোন করলেই খাবার পৌছে দিচ্ছে “হ্যালো ছাত্রলীগ”। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম এর অনুপ্রেরণায় এই উদ্যোগ। নগরের ১ থেকে ৬ নং ওয়ার্ড পর্যন্ত যে কেউ ফোন বা ম্যাসেজ দিলেই খাবার পৌঁছে যাচ্ছে। করোনার প্রভাবে খেটে খাওয়া ও অসহায় মানুষের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মহোদয়ের খাবার বিতরণ চলছে। কিন্তু মধ্যবৃত্ত ও নিম্নমধ্যত্তদের ঘরে খাবার পৌঁছে দিতেই মুলতঃ এই উদ্যোগ। কাশিমপুর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি ও গাজীপুর মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সহ সভাপতি সায়মন সরকার বলেন,গরিব,ভ্যানচালক,রিক্সা চালক,দিন মজুর ও খেটে খাওয়া মানুষের জন্য সরকারি ও সিটি কর্পোরেশন থেকে খাবার পাচ্ছে। যারা লাইনে দাড়িয়ে খাবার নিতে অপরাগতা মনে করে,মুলতঃ তাদের জন্য এই কর্মপরিকল্পনা। সায়মন সরকার আরো বলেন,আমার অভিবাবক মাননীয় মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ভাইয়ের দিকনির্দেশনা আমরা কাশিমপুর থেকে প্রথম শুরু করি। ১ থেকে ৬ টি ওয়ার্ডে কন্ট্রোল রুমের মাধ্যমে ফোন বা ম্যাসেজ দিলে খাবার পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। মেয়র মহোদয় সার্বক্ষণিক খোজ খবর নিচ্ছেন, আমাকে উৎসাহিত করছেন। আমি ছাত্র লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে সংযুক্ত করেছি,তারা মাননীয় মেয়র মহোদয়ের নির্দেশে একযোগে দীর্ঘ দুইমাসের অধিক আমার সাথে কাজ করছে। এই পর্যন্ত ৮৬০ টি পরিবারে গোপনে ও প্রকাশ্যে খাবার পৌঁছে দিয়েছে “হ্যালো ছাত্রলীগ”। সায়মন সরকার আরো বলেন,মাননীয় মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ভাই করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাবের শুরু থেকে হাত ধোয়া থেকে করোনা মোকাবেলা সরঞ্জাম ও নগরের প্রায় সাড়ে ৩ লক্ষ লোকের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছেন। তারই ধারাবাহিকতায় “হ্যালো ছাত্রলীগ” টিম গঠন করা হয়েছে। বর্তমানে এই কন্ট্রোল রুমে ১২০০ খাবার মজুদ করা অাছে। কাশিমপুর থেকে শুরু করলেও নগরের প্রতিটি ওয়ার্ডে ধারাবাহিক ভাবে চলবে,করোনা ভাইরাস যতদিন থাকবে।

Leave a Reply

Top