You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > ফেস অ্যাপ ব্যবহারে ব্যক্তিগত তথ্য বেহাত হয়ে যাচ্ছে

ফেস অ্যাপ ব্যবহারে ব্যক্তিগত তথ্য বেহাত হয়ে যাচ্ছে

বিশেষ প্রতিনিধি :

গত কয়েকদিন ধরে টুইটার, ফেসবুক বৃদ্ধ মানুষের ছবিতে সয়লাব হয়ে গেছে। বাংলাদেশসহ অধিকাংশ দেশের ব্যবহারকারীরা ফেসঅ্যাপ নামের বিশেষ একটি অ্যাপ ব্যবহার করে নিজের ছবিকে বেশি বয়সী করছেন। প্রযুক্তিবিদরা বলছেন এই অ্যাপ ব্যবহারে ব্যক্তিগত তথ্য বেহাত হয়ে যাচ্ছে!


এই অ্যাপ ছবি এডিট করার সময় একটি ফিল্টারের মাধ্যমে আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স (এইআই) বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে। আপনি নতুন হেয়ার স্টাইল যোগ করতে পারেন, জোর করে কারো মুখে হাসি জুড়ে দিতে পারেন। দুই বছর আগে এই অ্যাপ ব্যবহার করে স্কিন টোন পাল্টে দেওয়া যেত। সেটি অবশ্য দ্রুত সরিয়ে নেয়া হয়।


২০১৭ সালের জানুয়ারিতে আইওএসের জন্য ফেসঅ্যাপ চালু হয়। ফেব্রুয়ারিতে আসে অ্যান্ড্রয়েডে। এটি বিনা মূল্যে ব্যবহার করা গেলেও বেশ ঝুঁকি আছে। প্রযুক্তিবিদ জোশুয়া নোজ্জি টুইটারে এই অ্যাপটি সম্পর্কে একটি পোস্ট দিয়েছেন। তিনি বলছেন, ফোনের ফটো গ্যালারিতে অ্যাপটিকে অ্যাকসেস দেওয়ার পর এটি ধীরে ধীরে সব ছবির তালিকা প্রস্তুত শুরু করে। জোশুয়া এরপর দ্রুত এয়ারপ্লেন মোড চালু করে। 


তিনি মনে করছেন, অ্যাকসেস দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফেসঅ্যাপ তাদের সার্ভারে ব্যবহারকারীর সব ছবি আপলোড করে নেয়। বিষয়টি নিয়ে ফেসঅ্যাপ এখনো কোনো মন্তব্য করেনি। তবে তাদের নিরাপত্তা বিষয়ক নীতিমালায় বলা আছে, অ্যাপটি ব্যবহার করে যে ছবি এবং কনটেন্ট পোস্ট করা হয়, সেগুলোই সংগ্রহ করে কর্তৃপক্ষ। প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট টেকক্রাঞ্চের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,  অনেকে গ্যালারিতে বিভিন্ন ব্যাংকিং হিসাবের স্ক্রিনশট রেখে দেন। থাকে আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছবি। অ্যাপ দিয়ে এডিট করার সময় এসব ব্যক্তিগত ছবি এবং স্ক্রিনশট সরিয়ে ফেলা উচিত।প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট টেকক্রাঞ্চের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,  অনেকে গ্যালারিতে বিভিন্ন ব্যাংকিং হিসাবের স্ক্রিনশট রেখে দেন। থাকে আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছবি। অ্যাপ দিয়ে এডিট করার সময় এসব ব্যক্তিগত ছবি এবং স্ক্রিনশট সরিয়ে ফেলা উচিত।

Leave a Reply

Top