You are here
Home > খেলাধুলা > নেইমারের বন্ধু হওয়ার দরকার নেই : এডিসন কাভানি

নেইমারের বন্ধু হওয়ার দরকার নেই : এডিসন কাভানি

আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক দল হওয়ার দরকার। সেজন্য নেইমারের বন্ধু হওয়ার দরকার নেই আমার। আপনাকে পেশাদার হতে হবে। প্রত্যেকেরই নিজস্ব জীবন আছে। অতীতে যা হয়েছে সেটা নিয়ে ভাবতে চাই না। ফুটবলে এগুলো ঘটে থাকে। আমাদের অবশ্যই একসঙ্গে সমাধান খুঁজে বের করতে হবে এবং একটা দল হিসেবে কাজ করতে হবে। গেল রাতে চ্যাম্পিয়নস লিগে বেলজিয়ামের ক্লাব আন্ডারলেখটের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে এমন কথাই শোনালেন পিএসজি তারকা এডিসন কাভানি।

চলতি বছরের সামার ট্রান্সফার উইন্ডোতে বার্সা ছেড়ে পিএসজিতে যোগ দেন নেইমার। খুব অল্প সময়ে গোটা প্যারিসে ছড়িয়ে পড়ে নেইমারের জনপ্রিয়তা। মাঠের পারফর্মেও আলোকিত ছাপ রাখতে শুরু করেন নেইমার। কিন্তু দেড় মাস যেতে না যেতেই শুরু হট্টগোল। সেপ্টেম্বরের শেষ দিকে ফুটবল বিশ্ব দেখেছে তার এক ঝলক। ফরাসি লিগে লিঁও’র বিপক্ষে ২-০ গোলের জয় পায় পিএসজি। সে দিন জয়কে আড়াল করে আলোচনার টেবিলে নেইমার-কাভানির কথা কাটাকাটি।

পেনাল্টি শট কে নেবেন? এমন উত্তর মেলাতে মাঠেই দুই দফা তর্কাতর্কি হয় নেইমার-কাভানির মধ্যে। প্রথম দফায় ম্যাচের ৫৭ মিনিটে পিএসজির হয়ে ফ্রি-কিক নিতে এগিয়ে আসেন কাভানি। কিন্তু নেইমারের স্বদেশী বন্ধু দানি আলভেজ বল নিয়ে বাড়িয়ে দেন নেইমারকে। ব্যাপারটি পছন্দ হয়নি কাভানির। বেশ রাগান্বিত হয়ে পড়েন উরুগুয়ের ফরোয়ার্ড। এরপর ম্যাচের ৭৯তম মিনিটে পিএসজি পেনাল্টি পেলে আলভেজ চেয়েছিলেন নেইমার কিক নিক। কাভানি সেটিও হতে দেননি। নিজেই কিক নেন। এ নিয়ে ত্রিমুখী তর্কে জড়ান কাভানি, আলভেজ ও নেইমার।

মাঠের ঝগড়ার পর ড্রেসিংরুমে দুজনের উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়, কাভানিকে বিক্রির দাবি নেইমারের, ইনস্টাগ্রামে কাভানিকে ‘আনফলো’ করা থেকে শুরু করে মুখ দেখাদেখিও বন্ধ ছিল পিএসজির দুই তারকার। কিন্তু এমন ঘটনা মিটমাট করতে উঠেপড়ে লাগে পিএসজি। নেইমার-কাভানির সঙ্গে একাধিক বৈঠক শেষে পিএসজি কোচ বলে দেন, ভাগ করে পেনাল্টি কিক নেবেন নেইমার-কাভনি। আমি তাদের দুজনের সঙ্গেই কথা বলেছি এবং তারা জানা পরিস্থিতি কোন দিকে গেছে। পেনাল্টি কিক নেয়ার জন্য আমাদের অনেক খেলোয়াড় তৈরি রয়েছে এবং তারা এর জন্য প্রস্তুতও। আমরা বেশি বেশি পেনাল্টি জিততে চাইবো। যাতে করে তারা দুজন পেনাল্টি নেয়ার সুযোগ পায়।

এরপর মিলে যায় নেইমার-কাভানি। কয়েকদিন আলোচনায়ও ছিলেন না তারা। সবাই ধরে নেন যাক, সমস্যার সমাধান হলো। কিন্তু ভেতরে ভেতরে ঠিকই আগুণ জ্বলছে। এডিসন কাভানির কথায় তেমন আভাসই মিলল।

Leave a Reply

Top