You are here
Home > জাতীয় > নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত বিএনপি কে পূর্নবিবেচনার আহবান- কাদের

নির্বাচনে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত বিএনপি কে পূর্নবিবেচনার আহবান- কাদের


গাজীপুর প্রতিনিধি :

সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতীয় নির্বাচনে মহাপরাজয়ের পর বিএনপির অবস্থা এখন মহাবিপর্যয়ে পড়ার মতো। তারা আসলে রাজনীতির মহাদুর্যোগে পতিত হয়েছে এবং তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। পথিক যেমন পথ হারিয়ে দিশেহারা হয়ে যায়, নির্বাচনে পরাজয়ের পর বিএনপির অবস্থাও সে রকম। তারা আজকে দিশেহারা পথিকের মতো পথ হারিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলছে। কি করবে, কি করবে না, কিংকর্তব্যবিমুঢ় হয়ে পড়েছে। নির্বাচনে আসা, না আসা এটা তাদের সিদ্ধান্তের ব্যাপার। তবে একটা দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করা, এটার যে পরিণতি সেটা তাদেরকে অচিরেই ভোগ করতে হবে। কারণ এতে তারা আরো নতুন নতুন সংকটে পতিত হবে।


মন্ত্রী শুক্রবার সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুর সিটি করপোরেশনের কোণাবাড়ি এলাকায় ফ্লাইওভারের কাজ পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ সব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, এদেশে মুসলিম লীগও একটা বড় দল ছিল। সংকুচিত হয়ে তাদের অতিত্বটা প্রায় বিরল প্রজাতির প্রাণীর মতো বিলুপ্ত হতে যাচ্ছে। বিএনপিও মুসলিম লীগের পরিণতির দিকে যাচ্ছে কি না ? নির্বাচন বয়কটের মধ্য দিয়ে তারাতো নিজেদেরকে আরও সংকুচিত করার সর্বনাশা পথ, আত্মঘাতি পথ বেছে নিয়েছে এটাই মনে হয়। তাদের অনুরোধ করব নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য। সামনে উপজেলা, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচন ও কিশোরগঞ্জে একটি উপ-নির্বাচন আছে। আমি উপ-নির্বাচন, সিটি করপোরেশন, উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য বিএনপিসহ সকল নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলকে আহবান জানাচ্ছি এবং তাদের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য অনুরোধ করছি।


মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সবচেয়ে দীর্ঘ এই কোণাবাড়ি ফ্লাইওভার। এটি ১৬৪৫ মিটারের মতো দৈর্ঘ্য। এর কাজও প্রায় শেষ। কোণাবাড়ি ও চন্দ্রার কাজ এপ্রিলের মধ্যে সমাপ্ত হবে। ইতোমধ্যে লতিফপুর রেলওভারপাস এবং দেরুয়া রেলওভার পাসের কাজ শেষ হয়েছে। আমরা আশা করছি, রোজার আগেই কোণবাড়ি ও চন্দ্রা ফ্লাইওভার এবং লতিফপুর ও দেরুয়া রেলওভারপাস যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দিতে পারব। ফলে যানজট নিরসনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা এখান থেকে পাওয়া যাবে। আমি আশা করি আগামী রমজানের ঈদের আগেই জয়দেবপুর থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত রাস্তায় আর কোন সমস্যা থাকবে না। যান চলাচল স্বাভাবিক হবে।
তিনি জানান, ইতোমধ্যে এলেঙ্গা থেকে রংপুর পর্যন্ত ফোর লেন বাস্তার চুক্তি হয়েছে। এ ফোর লেনের জন্য ১২ হাজার কোটি টাকার মতো বরাদ্দ হয়েছে। এটা সাসেক টু প্রজেক্ট। এর পরে আমাদের সাসেক থ্রি তে আসবে পঞ্চগড় এবং বুড়িমারি পর্যন্ত। এতে গোটা উত্তরাঞ্চল গাজীপুর থেকে ফোর লেনের আওতায় চলে আসবে।


পরিদর্শনকালে মন্ত্রীর সাথে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সড়ক ও জনপথের ঢাকা বিভাগীয় তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী সবুজ উদ্দিন খান, সাসেক প্রকল্পের পরিচালক মো: ইছহাক, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মো: আজাদ মিয়া, গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আমীনুল ইসলাম, গাজীপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী মুহাম্মদ সাইফউদ্দিন এবং সড়ক বিভাগ ও প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। স্থানীয়দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,সিটির ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ নাসির উদ্দিন মোল্লা,৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ কাউসার আহমেদ,গাজীপুর সংরক্ষিত মহিলা এমপি প্রার্থী কামরুন নাহার মুন্নি,কোনাবাড়ী থানা যুবলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ তোফাজ্জল হোসেন,আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ আনোয়ার পারভেজ,মোঃ আনিছুর রহমান মাস্টার,মোঃ বিল্লাল হোসেন যুবলীগ নেতা মোঃ আনোয়ার মোল্লা,শ্রমিকলীগ নেতা মোঃ আব্দুর রশীদ মিয়া প্রমূখ।

Leave a Reply

Top