You are here
Home > আন্তর্জাতিক > তিন শতাব্দী দেখা এমা আর নেই !!!!

তিন শতাব্দী দেখা এমা আর নেই !!!!

অনলাইন ডেস্ক :

১১৭ বছর বয়সে মারা গেলেন বিশ্বের সবচেয়ে বয়স্ক নারী এমা মোরানো। গতকাল শনিবার ইতালিতে নিজ বাসায় তাঁর মৃত্যু হয়। খবর বিবিসি অনলাইনের।
১৮৯৯ সালের ২৯ নভেম্বর ইতালির পেইডমন্ট শহরে জন্মগ্রহণ করেন এমা। গেল নভেম্বরে তিনি তাঁর ১১৭তম জন্মদিন উদ্‌যাপন করেন। আনুষ্ঠানিকভাবে ঊনবিংশ শতাব্দীতে জন্ম নেওয়া তিনিই বিশ্বের শেষ ব্যক্তি ছিলেন। সেই হিসাবে তিন শতক দেখেছেন তিনি।

সম্প্রতি এমা মোরানো এক সাক্ষাৎকারে এত দিন বাঁচার রহস্যের কথা জানিয়েছিলেন। তিনি বলেন, ৯০ বছর ধরে তিনি প্রতিদিন তিনটি করে ডিম খান, এর মধ্যে দুটি কাঁচা অবস্থায়।

আট ভাইবোনের মধ্যে সবার বড় ছিলেন এমা। বংশগতভাবেই দীর্ঘজীবী তাঁরা। এমার মা বেঁচেছিলেন ৯১ বছর। তবে খাদ্যাভ্যাসই এত দিন বেঁচে থাকার মূল কারণ বলে মনে করতেন এমা।

এমার পারিবারিক চিকিৎসক জানিয়েছিলেন, জীবনের শেষের দিকে দিনে দুটি করে ডিম আর অল্প কিছু বিস্কুট খেতেন তিনি। জীবনে তিনি শাকসবজি খুবই কম খেয়েছেন। ৯০ বছর ধরে সকালে দুটি কাঁচা ডিম, দুপুরে একটা ডিম ভাজি আর রাতে মুরগির মাংস খেতেন তিনি।

তবে এত বছর বাঁচলেও জীবনে বহু ঘাত-প্রতিঘাত পেরোতে হয়েছে এমাকে। তিনি যাঁকে ভালোবাসতেন, সেই ব্যক্তি প্রথম বিশ্বযুদ্ধে মারা যান। ১৯৩৮ সালে স্বামী তাঁকে রেখে চলে যান। পরের বছর মারা যায় তাঁর ছয় মাস বয়সী একমাত্র সন্তান।

নিজের জীবন নিয়ে একটি দৈনিকের সাক্ষাৎকারে এমা মোরানো বলছিলেন, তাঁর স্বামী তাঁকে বিয়ের আগে বলেছিলেন, ‘আমাকে বিয়ে করলে তুমি ভাগ্যবতী হবে, না হলে আমি তোমাকে মেরে ফেলব।’ ২৬ বছর বয়সে বিয়ে করেন তিনি। ১৯৩৮ সালে তাঁর স্বামী তাঁকে ছেড়ে গেলেও আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁদের ছাড়াছাড়ি হয়নি। তাঁর স্বামী মারা যান ১৯৭৮ সালে। এরপর আর বিয়ে করেননি তিনি। নিউইয়র্ক টাইমসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে একবার তিনি বলেছিলেন, ‘আমি কারও দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হতে চাই না।’

১১৭ বছরের দীর্ঘ জীবনে ৯০টি সরকার পরিবর্তন দেখেছেন এমা। সাক্ষী হয়ে ছিলেন দুটি বিশ্বযুদ্ধের।

Leave a Reply

Top