নার্স তানিয়া হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে কাপাসিয়ায় মানববন্ধন। – Live News BD, The Most Read Bangla Newspaper, Brings You Latest Bangla News Online. Get Breaking News From The Most Reliable Bangladesh Newspaper; livenewsbd.co
You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > নার্স তানিয়া হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে কাপাসিয়ায় মানববন্ধন।

নার্স তানিয়া হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে কাপাসিয়ায় মানববন্ধন।

মোঃআরিফ মৃধাঃ

ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স শাহিনুর আক্তার তানিয়া হত্যাকারীদের  ফাঁসির দাবিতে মঙ্গলবার (১৪ মে)  গাজীপুরের কাপাসিয়ায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত  হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪ মে) দুপুর ১২  টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন ও মিডওয়াইফারি নার্সেস এসোসিয়েশন এ কর্মসূচি পালন করে। মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন নার্সিং সুপারভাইজার জাকিয়া জেসমিন, সুরাইয়া পারভীন, নার্সেস এসোসিয়েশনের সভাপতি নাজমা সুলতানা, কামরুজ্জামান,রুনা আক্তার, মমতাজ আক্তার,মাহমুদা খানম ও তানিয়া শান্তা। উল্লেখ্য  গেল (৬ মে ২০১৯ ইং)মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে রাজধানীর বিমানবন্দর স্টেশন স্বর্ণলতা পরিবহণের একটি বাসে করে কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী উপজেলার বাহেরচরের গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছিলেন তানিয়া। উদ্দেশ্য ছিল বাবা ও পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে প্রথম রোজা রাখা। কিন্তু দুর্ভাগ্য তানিয়ার! মানুষরুপী কিছু পশু তার সে আশা পূরণ হতে দেয়নি। স্বর্ণলতা পরিবহনের ঢাকা থেকে পিরোজপুরগামী বাসটি রাত আটটার দিকে বাজিতপুরের উত্তর  উজানপুরে পৌছলে বাসে থাকা ৩২ যাত্রীর সবাই একে একে নেমে পড়ে।শুধু রয়ে যায় তানিয়া। এদিকে তানিয়া কে একা পেয়ে বিমানবন্দর থেকে পরিকল্পনা করা বাসের চালক নুরুজ্জামান নুর মিয়া, হেলপর লালন এবং তাদের সহযোগীরা একের পর এক গণধর্ষণ করে তানিয়াকে। গণধর্ষণ শেষে এক পর্যায়ে তানিয়াকে বাস থেকে ফেলে দেয় এবং দুর্ঘটনার নাটক সাজানোর চেষ্টা করে। পরবর্তীতে পথচারী ও  স্থানীয়রা এগিয়ে এলে অন্যদের সহযোগিতা না নিয়ে বাসের চালক,  হেলপার ও তাদের সহযোগীরা নিজেরাই প্রথমে পাশ্ববর্তী  সততা ফার্মেসিতে নিয়ে যায়।মেয়েটির অবস্থা ভালনা দেখে ফার্মেসীর লোকজন মেয়েটিকে দ্রুত কটিয়াদী হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেয়। পরবর্তীতে চালক ও হেলপার বাসে করে পুনরায় তানিয়াকে গাজীপুরের দিকে নিয়ে আসতে চাইলে, বাসের মালিক খবর পেয়ে তানিয়াকে কটিয়াদী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দেয়। তখনও বাসের মালিক জানতেন না তানিয়ার ধর্ষণ ও পরবর্তীতে নাটক সাজানোর বিষয়টি।  এদিকে খবর পেয়ে পিরিজপুর থেকে একটি অটোরিকশা করে স্বর্ণলতা পরিবহনের কাউন্টারের লোকজন তানিয়াকে কটিয়াদী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মৃত্যুর খবর শোনার পর বাসের চালক নূরু ও সহযোগীরা বাসটি নিয়ে রাতেই গাজীপুরের দিকে চলে আসে এবং কাপাসিয়ার টোক এলাকায় গা ঢাকা দেওয়ার চেষ্টা করে। পরবর্তীতে প্রযুক্তি ব্যবহার করে রাতেই তাদেরকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এদিকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের পর তানিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যার কথা স্বীকার করে চালক নূরুজ্জামান নূরু আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। এদিকে এ ঘটনার পর থেকে তানিয়া  ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদে কিশোরগঞ্জ সহ সারা দেশে প্রতিবাদের ঝড় উঠে। ডাক্তার, নার্সসহ সর্বস্তরের জনতা আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি দাবি করেন।  ঘটনার পর থেকে বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়া ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সংবাদ প্রচার করে এবং বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আসামীদেরকে গ্রেফতার করে শাস্তি মূলক ব্যবস্থা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন।

Leave a Reply

Top