You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > তরুন বয়সে আওয়ামী লীগের হাল ধরেন ইঞ্জিনিয়ার রিপন

তরুন বয়সে আওয়ামী লীগের হাল ধরেন ইঞ্জিনিয়ার রিপন

গাজীপুর প্রতিনিধিঃ

স্কুল জীবন থেকে বাবা চাচাদের আর্দশে বড় হয়ে স্বপ্ন দেখতেন জাতির জনকের সোনার বাংলা গড়ার অংর্শিদার হতে। তাইতো ছেলে বেলায় নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ক্লাশ ফাঁকি দিয়েও মিছিলে অংশ গ্রহন করার নজির ছিল বহুদিন। বুজে না বুজে বঙ্গবন্ধুর খুনির বিচার চাইতে রাজপথে শ্লোগানে মূখরিত করার জন্য চেষ্টা ছিল প্রতিনিয়ত। মাধ্যমিক পেড়িয়ে উচ্চ মাধ্যমিকের পাশাপাশি ছাত্রলীগ ও যুবলীগের মিছিলে ভুমিকা ছিল সক্রিয়। পদপদবি চাচা ভাইদের থাকলেও নিজের চিন্তা চেতনা ছিল ভিন্ন। পদে না থেকে মানুষের সেবা করা যায়। চাচা সাবেক মেম্বার সিটি হওয়ার পর কাউন্সিলর মরহুম ছানাউর রহমান। মারা যাওয়ার আগেও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন দীর্ঘদিন। সাবেক গাছা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব ছিল। মারা যাওয়ার পর বড়ভাই ওয়ার্ড কাউন্সিলর। চাচা ও ভাইয়ের মৃত্যুর পর বর্তমান মহানগরের সবচাইতে বড় ওয়ার্ড সাবেক ১০ টি গ্রাম নিয়ে গঠিত নগরের ৩৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের দায়িত্ব তুলে দেওয়া হয় তরুন ও উদীয়মান আওয়ামী লীগ নেতা বর্তমান নব গঠিত আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব ইঞ্জিনিয়ার মোঃ হুমায়ুন কবির রিপনের হাতে।

গত ২৩ শে সেপ্টেম্বর বিকাল ৩ টায় গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ আজমত উল্লাহ খান ও সাধারণ সম্পাদক সিটির মানবিক মেয়র আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম স্বাক্ষরিত ৬৯ বিশিষ্ট কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়। কমিটির চিঠি হাতে পেয়ে অানন্দ, দুঃখ, কষ্ট সবই চলে আসলো মনের অজান্তে। চাচা ও বড় ভাইয়ের সেই দায়িত্ব নিজের কাছে আসায় তাদের রুহুের মাগফেরাত কামনায় অঝোরে কাঁদলেন রিপন। বললেন পিতা, চাচা ও ভাই হারানো বেদনার কথা,তারা আমাকে শিখিয়ে গেছে কিভাবে এ জনপদের মানুষ কে সাথে নিয়ে কাজ করতে হয়। দূর থেকে দেখেছি এই সমাজের মানুষের সাথে একাকার হয়ে মিশে গেছেন সাধারণ ভাবে। দলীয় পদবি আল্লাহ তায়ালার দান কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি,আমার রাজনৈতিক অভিবাবক, ছাত্র জীবনে দেখেছি কিভাবে তিনি অান্দোলন সংগ্রাম করে দাবি আদায় করতেন,সেই সফল ছাত্রনেতা আজকের গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ৪০ লক্ষ মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের রুপকার আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলমের প্রতি। সাথে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খান কে। তারা আমার পরিবারকে যে সম্মান জানিয়েছেন, তা কোনদিনও ভুলবো না। যেই দায়িত্ব আমাকে দেওয়া হয়েছে,সেই দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করবো অক্ষরে অক্ষরে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা,বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী দেশরত্ম শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে কমিটির আহবায়ক,যুগ্ন আহবায়ক ও সদস্যদের সাথে নিয়ে আওয়ামী লীগের পতাকাতলে কাজ করে যাবো। গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ থেকে যে কোন নিদর্শনা আসলে তা পালন করবো।

Leave a Reply

Top