You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > ঢাকাগামী আন্তনগর ট্রেনের স্টপেজের দাবিতে আবারও আন্দোলনে উত্তাল আত্রাই

ঢাকাগামী আন্তনগর ট্রেনের স্টপেজের দাবিতে আবারও আন্দোলনে উত্তাল আত্রাই


জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ :

আত্রাই, রাণীনগর ও বাগমারা,মান্দা,বগুড়া জেলার নন্দগ্রাম এই পঁাচ উপজেলার মোহনায় অবস্থিত আত্রাই উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ও বৃটিশ সরকার শাসনামলের স্থাপিত রেলওয়ে ষ্টেশন আহসানগঞ্জ রেলওয়ে ষ্টেশন। এ স্টেশনে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজের দাবিতে আবারও লাগাতার আন্দোলনের ডাক দিয়েছে এই সকল উপজেলার সর্ব স্তরের জনগন। মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও রেললাইন অবরোধ করে ট্রেন দঁাড় করানোর মত বিভিন্ন কর্মসূচিতে মূখোর এখন আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশন। গত কয়েকদিন ধরে প্রতিদিন বেলা সাড়ে ১২টায় দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী ছেড়ে আসা দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেন টি আত্রাই আহসানগঞ্জ স্টেশনে পেঁাছানো সময় পর্যন্ত এসব কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।


এদিকে আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজের দাবি আদায় কার্যকর না হওয়া পর্যন্ত প্রতিদিন একর্মসূচি পালনের ঘোষনা দেন আন্দোলনকারীরা। এতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন আত্রাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এবাদুর রহমান ,ভাইস চেয়ারম্যান শেখ হাফিজুর রহমান , মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী গোলাম মোস্তফা বাদল, উপজেলা আওয়ামী লীগ যুব লীগ সাবেক সভাপতি শহিদুল ইসলাম বাবু, উপজেলা আওয়ামী লীগ দপ্তর সম্পাদক ফজলে রাব্বী জুয়েল, আত্রাই পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সাবেক পরিচালক মাহাতাব উদ্দিন, ভোঁপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল কাশেম ,সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃগাহের আলী,প্রমূখ। জানা যায়, নওগঁা জেলার বৃহৎ আত্রাইয়ের আহসানগঞ্জ রেল স্টেশনের উপর দিয়ে প্রতিদিন উত্তর বঙ্গের দিনাজপুর ও নীলফামারী থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী ৫ জোড়া আন্তঃ নগর ট্রেন চলাচল করলেও মাত্র একটি ট্রেন নীলসাগর আন্তঃনগর ট্রেন ছাড়া ঢাকাগামী অন্য কোন আন্তঃ নগর এক্সপ্রেস ট্রেনের স্টপেজ নেই এখানে । ফলে ঢাকাগামী যাত্রীদের চরম দূভোর্গের শিকার হতে হয়। ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেনের মধ্যে কেবল মাত্র নীলফামারী থেকে ছেড়ে আসা নীলসাগর আন্তঃ নগর ট্রেনের স্টপেজ এ স্টেশনে রয়েছে। তাও আবার আসন সংখ্যা বরাদ্ধ রয়েছে মাত্র ৪৬টি। অথচ আত্রাই থেকে প্রতিদিন আত্রাই, রানীনগর, মান্দা,বাগমারা, বগুড়ার নন্দীগ্রাম এলাকার মানুষ প্রতিদিন ঢাকায় রাজধানীতে যাতায়াত করেন প্রায় ২শতাধীক যাত্রী। ফলে সীমিত সংখ্যক আসনের জন্য হিমসিম খেতে হয় স্টেশন কর্তৃপক্ষকে। এদিকে নীল সাগর এক্সপ্রেস ছাড়াও আত্রাই আহসানগঞ্জ এর উপর দিয়ে প্রতিদিন দ্রুতযান এক্সপ্রেস, রংপুর এক্সপ্রেস,লালমনি এক্সপ্রেস এবং একতা এক্সপ্রেস নামে আরও ৪টি আন্তঃনগর ট্রেন চলাচল করে। এছাড়া সম্প্রতি যোগ হয়েছে পঞ্চগড় এক্সপ্রেস নামে আরও একটি আন্তঃনগর ট্রেন। অথচ এলাকাবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবির সত্বেও এসব আন্তঃনগর ট্রেনের স্টপেজ কার্যকর না হওয়ায় একদিকে যাত্রীরা হচ্ছেন দূর্ভোগের শিকার অন্যদিকে সরকার বঞ্চিত হচ্ছে বিপুল পরিমানের রাজস্ব আয় থেকে। এছাড়া
আত্রাইয়ে আন্তনগর ট্রেনের বিরতির দাবিতে ২০১৬ সালেও এমন আন্দোলন করেছিলেন এলাকাবাসী। মাসাধীক কাল আন্দোলনের পরও দাবি পূরণ না হওয়ায় দিনে দিনে আন্দোলন কর্মসূচির ভাটা পড়ে যায়। একই দাবিতে আবারও সোচ্চার হয়েছেন এলাকাবাসী। এবার দাবি আদায়ে জন্য পালিত হচ্ছে বিভিন্ন কর্মসুচি। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল মঙ্গবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এবাদুর রহমানের নেতৃত্বে আত্রাই ও পার্শ্ববতী জেলা ও উজেলা এলাকার কয়েক হাজার নারী- –পুরুষ সম্মিলিত হয়ে আত্রাই আহসানগঞ্জ রেলওয়ে স্টেশনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। এসময় ঢাকাগামী দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেন আসলে আন্দোলনকারীদের অবরোধের মুখে চালক ট্রেন থামিয়ে দেন। প্রায় ১০ মিনিট বিরতির পর আবার ট্রেন ছেড়ে ঢাকা অভিমুখে চলে যায়।


এ ব্যাপারে আত্রাই উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এবাদুর রহমান বলেন, দিনাজপুর থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেনটি আহসানগঞ্জ স্টেশনে যাত্রা বিরতি ঘোষনা না করা হলে আগামীতে অবরোধসহ কঠিন কর্মসূচির ঘোষনা করা হবে। এই স্টেশনে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেনের আসন সংখ্যা বৃদ্ধিসহ স্টেশনে যাত্রী সেবার মানবৃদ্ধি করার লক্ষ্যে সরকারের সু-দৃষ্টি কামনা করেন তিনি।


এব্যাপারে উপজেরা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ বেগম বলেন, বর্তমানে এ স্টেশনে প্রতি মাসে ১৪-থেকে ১৬লাখ টাকা আয় হয়। ঢাকাগামী অন্যান্য ট্রেনের এবং খুলনাগামী সীমান্ত আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনের স্টপেজ কার্যকর হলে সরকারের রাজস্ব আয় অনেকগুন বেড়ে যাবে। যেখানে সরকারের রাজস্ব আয় বাড়বে এবং এলাকাবাসী উপকৃত হবে। সেখানে এ ট্রেনগুলোর স্টপেজ দিতে আপত্তি কোথায়।

Leave a Reply

Top