You are here
Home > আন্তর্জাতিক > জাপান ও আমেরিকা ১৮ দিনের তাজা গুলির যৌথ নৌ মহড়া শুরু করেছে

জাপান ও আমেরিকা ১৮ দিনের তাজা গুলির যৌথ নৌ মহড়া শুরু করেছে

আন্তর্জাতিক প্রতিবেদকঃ জাপান ও আমেরিকা ১৮ দিনের তাজা গুলির যৌথ নৌ মহড়া শুরু করেছে। যখন উত্তর কোরিয়া ও আমেরিকার মধ্যে সামরিক সংঘাত শুরু হতে পারে বলে আশংকা তীব্র হচ্ছে তখন ওয়াশিংটন ও টোকিও এ মহড়া শুরু করল। মহড়ায় আমেরিকার পক্ষে দুই হাজারের বেশি এবং জাপানের পক্ষে দেড় হাজার সেনাসদস্য অংশ নিচ্ছে। আজ (সোমবার) জাপানের হোক্কাইডো দ্বীপের এনিওয়া এলাকায় এ মহড়া শুরু হয়। মার্কিন কমান্ডিং অফিসার জেমস হার্প বলেন, মহড়াটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ জাপানি সেনাদের সঙ্গে তাদের এমন মহড়া চালানোর সুযোগ খুব সীমিত। এ অঞ্চলকে শত্রুর হাত থেকে রক্ষার জন্য এ ধরনের প্রশিক্ষণ অব্যাহত রাখা দরকার বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

গত কয়েকদিন ধরে উত্তর কোরিয়ার ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ও পরমাণু কর্মসূচির জন্য পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে সামরিক হামলার হুমকি দিচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। পিয়ংইয়ংও পাল্টা হুমকি দিয়ে বলেছে, চলতি আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়ে আমেরিকার গুয়াম সামরিক ঘাঁটিতে পরমাণু হামলার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে।

উত্তর কোরিয়া থেকে লোহা এবং সামদ্রিক খাবার আমদানি বন্ধ করে দিয়েছে চীন। পিয়ংইয়ংয়ের ক্ষেপণাস্ত্র এবং পরমাণু কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে জাতিসঙ্ঘ নিরাপত্তা পরিষদ উত্তর কোরিয়ার ওপর বাণিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার পর চীনের পক্ষ থেকে এ পদক্ষেপ নেয়া হলো। চীনের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আজ (সোমবার) এক বিবৃতিতে বলেছে, আগামীকাল থেকে কয়লা, লোহা, আকরিক লোহা এবং সামদ্রিক জাতীয় সব ধরনের খাবার উত্তর কোরিয়া থেকে আমদানি করা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হলো।

উত্তর কোরিয়ার রপ্তানি বাণিজ্যকে টার্গেট করে আরোপিত এ নিষেধাজ্ঞার ফলে দেশটির বার্ষিক ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়াবে ১০০ কোটি ডলার। নিরাপত্তা পরিষদে পাস হওয়া প্রস্তাবে উত্তর কোরিয়া থেকে কয়লা, লোহা, লৌহ আকরিক, সিসা, আকরিক সিসা, মাছ এবং অন্যান্য সামুদ্রিক পণ্য রপ্তানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে উত্তর কোরিয়া থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শ্রমিক পাঠানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। পাশাপাশি উত্তর কোরিয়ায় বিদেশি পুঁজি বিনিয়োগকেও এই নিষেধাজ্ঞার আওতায় আনা হয়েছে। মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে উত্থাপিত এ নিষেধাজ্ঞা প্রস্তাবের পক্ষে উত্তর কোরিয়ার দীর্ঘ দিনের মিত্র চীনও ভোট দিয়েছে।

Leave a Reply

Top