You are here
Home > আন্তর্জাতিক > চীনের হুমকি উপেক্ষা করা উচিত না নরেন্দ্র মোদির

চীনের হুমকি উপেক্ষা করা উচিত না নরেন্দ্র মোদির

অনলাইন ডেস্ক :

ডোকলামে ‘উসকানিমূলক কর্মকাণ্ডের’ বিরুদ্ধে চীনের কাছ থেকে কোনো পাল্টা জবাব আসবে না, এমনটা যদি ভারত মনে করে থাকে, তবে তারা ১৯৬২ সালের মতোই সরল-সোজা রয়ে গেছে। চীনের রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত সংবাদপত্র গ্লোবাল টাইমস গতকাল মঙ্গলবার এ মন্তব্য করেছে।

পত্রিকাটি এক সম্পাদকীয় নিবন্ধে আরও লিখেছে, চীনের হুঁশিয়ারিগুলো ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যদি ‘উপেক্ষা’ করতেই থাকেন, পরিণামে সামরিক বিরোধ ‘অনিবার্য’।

চীন সহজে ভারতের সঙ্গে যুদ্ধের ঝুঁকি নেবে না বলে নয়াদিল্লির কর্মকর্তারা মনে করেন, এমন খবর প্রকাশের পর গ্লোবাল টাইমস ওই সম্পাদকীয় নিবন্ধ ছেপেছে। এটির ভাষ্য: ভারত ১৯৬২ সালে ইন্দো-চীন সীমান্তে একের পর এক উসকানিমূলক তৎপরতা চালিয়েছিল। তখন জওহরলাল নেহরুর সরকার দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করত, চীন পাল্টা জবাব দেবে না। যা-ই হোক, নেহরুর সরকার চীনের ভৌগোলিক ঐক্য সুরক্ষার দৃঢ়সংকল্প অবমূল্যায়ন করেছিল। ৫০ বছর পেরিয়ে গেছে, কিন্তু ভারতের সরকার এখনো আগের মতোই অবুঝ রয়ে গেছে। ১৯৬২ সালের শিক্ষা অর্ধশতকও স্থায়ী হয়নি। নরেন্দ্র মোদির সরকার যদি চীনা হুঁশিয়ারি উপেক্ষা করতে থাকে, চীনের পাল্টা জবাব অনিবার্য হবে। সিকিম সীমান্তে ভুটান-সংলগ্ন ডোকলাম এলাকায় ভারত-চীন উত্তেজনা চলছে। বেইজিং বলেছে, ওই জায়গা থেকে ভারত সেনা না সরিয়ে নিলে তারা কোনো মীমাংসায় যেতে নারাজ।

Leave a Reply

Top