গাজীপুরে সন্ত্রাস ও জঙ্গীর খোঁজে বাড়ি বাড়ি তল্লাশী চলছে !!!! – Live News BD, The Most Read Bangla Newspaper, Brings You Latest Bangla News Online. Get Breaking News From The Most Reliable Bangladesh Newspaper; livenewsbd.co
You are here
Home > জাতীয় > গাজীপুরে সন্ত্রাস ও জঙ্গীর খোঁজে বাড়ি বাড়ি তল্লাশী চলছে !!!!

গাজীপুরে সন্ত্রাস ও জঙ্গীর খোঁজে বাড়ি বাড়ি তল্লাশী চলছে !!!!

স্টাফ রিপোর্টার:
জেলা সদর উপজেলার নয়টি (২৩-৩১) ওয়ার্ডে একযোগে জঙ্গী, সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী সাঁড়াশি অভিযান (ব্লক রেইড) শুরু হয়েছে। আজ শনিবার বেলা আড়াইটা থেকে ওই অভিযান শুরু করেছে গাজীপুর জেলা পুলিশ। যা সন্ধা সাড়ে ছয়টা পর্যন্ত চলবে।
গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সোলায়মান জানান, জঙ্গী, মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী ও বিভিন্ন মামলার পলাতক আসামিরা অবস্থান নিয়ে থাকতে পারে এমন আশঙ্কায় এই অভিযান চালানো হচ্ছে। অভিযানে গাজীপুর জেলা পুলিশের পোশাকধারী ৪০০ ও সাদা পোশাকে ১০০সহ মোট ৫০০ সদস্য অংশ নিচ্ছেন। অভিযানে প্রতিটি বাড়িতে তল্লাশি ছাড়াও যেসব বাড়িতে মালিক থাকে না তাদের ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহ করা হবে বলে জানান তিনি।

গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ রাসেল জানান, প্রত্যেক টিমের সাথে বাঁশি, দড়ি ও হেনকাফ থাকবে। সেই সাথে বাসার নিচের তলা অভিযান শেষে উপরের তলাগুলোতে তল্লাশীর সময় নিচে দুইজন কনস্টেবল অবস্থান করবে। এছাড়া যেসব বাসায় শিক্ষার্থীরা ভাড়া থাকছেন তাদের রুমে প্রবেশ করে মোবাইল ও যাদের ল্যাপটপ আছে তা সার্চ করে দেখা হবে কোন প্রকার জঙ্গী সংশ্লীষ্টতা আছে কিনা।
জেলার পুলিশ লাইন্সে ব্রিফিং প্যারেডে গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ জানান, জঙ্গী, মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী, পরোয়ানাভুক্ত ও পলাতক আসামি গ্রেফতারে এ অভিযান চালানো হচ্ছে। সে লক্ষ্যে গাজীপুরের ৯টি ওয়ার্ডকে ৪৫টি ভাগে বিভক্ত করে একযোগে এই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। আবার ৪৫টি ভাগকে ৮টি উপভাগে ভাগ করা হয়েছে। এই টিমে একজন করে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

অভিযানে প্রতি ওয়ার্ডে পুলিশের চারটি টিম অভিযান পরিচালনা করছে। একজন করে উপ-পরিদর্শক (এস আই) প্রতিটি টিমের নেতৃত্ব দিয়েছেন। সাথে প্রত্যেকটি টিমে একজন উপ-সহকারী পরিদর্শক (এএসআই) ও পাঁচজন কনস্টেবলসহ সাতজন পুলিশ সদস্য রয়েছে। জেলার সাধারণ পুলিশ, গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্যসহ মোট ৫০০ পুলিশ সদস্য এ অভিযানে অংশ নিয়েছে।

তিনি বলেছেন, পুলিশ পরিদর্শক আইজিপি এ কে এম শহিদুল হক আমাদের একটি নিদের্শনা দিয়েছেন যা সকলের জানা দরকার। গাজীপুরের টঙ্গী এলাকায় আমরা এক সাথে ব্লক রেইড করেছি। প্রত্যেকটি বাড়িতে বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করেছি। বাড়ির মালিককে আমরা সতর্ক করেছি। আর যে বাড়িতে মালিক নেই সেই বাড়িতে কারা কারা থাকে সে তথ্য আমরা নিয়েছি। এবং যেখানে বাড়িওয়ালা নেই তাদের সাথে যোগাযোগ করে আমরা পরবর্তীতে কথা বলার চেষ্টা করেছি।

আজকেও আমাদের যে অভিযান শুরু হয়েছে সেটা জয়দেবপুর সদর এলাকায় প্রায় ৪৫টি ভাগে ভাগ করে আমাদের ব্লক রেইড হবে। বাড়ির মালিক যারা আছে তাদেরকে আমরা বলব এবং তাদেরকে একটা করে ফরম দিব এবং কিভাবে জঙ্গী চিহ্নিত করা যায় সে বিষয়ে ধারণা দিব। পাশাপাশি বাড়ির মালিককে আমরা ধারণা দিব স্বল্প সময়ের জন্য যারা বাড়ি ভাড়া নিতে আসে তাদের সমস্ত তথ্য পুলিশকে দিতে।

বাড়ির মালিকদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, জঙ্গীরা আপনাদের কাছে ছোট বাচ্চা ও মহিলা নিয়ে আসবে। লক্ষ করবেন এদের কোন কাজ থাকবে না। এরা (জঙ্গী) বাসায় থাকবে সব সময়, দরজা জানালা বন্ধ রাখবে। এবং তারা কোথাও চাকুরীও করবে না। তাদের বাসায় কোন টিভি থাকবেনা, খাট পালং থাকবে না সেগুলি আমাদের এলার্ট করতে হবে আপনাদের। আমরা প্রত্যেকটি মানুষকে এ সম্পর্কে সচেতন করবো।

আমাদের উদ্দেশ্য একটাই যে আমাদের গাজীপুর এই এলাকায় কোন মাদক ব্যবসায়ী ও জঙ্গীরা থাকতে পারবে না তাদের বিরুদ্ধে আমাদের এই অভিযান। আমরা যেভাবে টঙ্গীকে ৬০টি ভাগে ভাগ করে ব্লক রেইড দিয়েছি। আজকে গাজীপুর সদরেও ৪৫টি ভাগে ভাগ করে প্রত্যেকটি বাড়িতে অভিযান শুরু হয়েছে। ভাড়াটিয়ার তথ্য নিব এবং পাশাপাশি তাদের সতর্ক করবো ও জানাবো যে জঙ্গীরা কীভাবে বিভিন্ন এলাকায় থাকার চেষ্টা করে।
প্রত্যেকটি ওসিদের নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, বন, জঙ্গলের আশে পাশে যদি কোন ভবন থাকে সেখানে আপনারা খোঁজ নিবেন। আমাদের সকলের উদ্দেশ্য কিন্তু এক। কেউ যদি মাদক ব্যবসায়ী হয়, সে মাদক ব্যবসার ছোঁয়া কিন্তু পরিবারে লাগবে। সে পরিবারের ছোঁয়া কিন্তু আপনার পরিবারে লাগবে। তাই মাদক ব্যবসায়ী যারা আছেন, মাদক যারা সেবন করছেন তাদের প্রত্যেকটি মানুষকে আমরা আইনের আওতায় আনবো। এটা আমাদের ‘রেগুলার রুটিন মাফিক অভিযান’ এটা অব্যাহত থাকবে। পাশাপাশি আমাদের যে মাদক বিরোধী অভিযান চলছে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত সে অভিযানও একসাথে অব্যাহত থাকবে। তিনি বক্তব্যের শেষ পর্যায়ে সাংবাদিকদের সহযোগীতা কামনা করেন।

এসপি আরও বলেন, আবাসিক এলাকার পাশাপাশি পুলিশের সন্দেহভাজন এলাকাগুলোকে তল্লাশির আওতায় আনা হয়েছে। অভিযানের আওতাভুক্ত এলাকার তালিকা আগেই প্রস্তুত করা হয়েছে। পরিস্থিতি অনুযায়ী এসব তালিকার বাইরেও অভিযান চালানো হতে পারে বলেও জানান তিনি।

পুলিশ সুপার আরো জানান, এসব এলাকার যেসব বাড়িতে বাড়ির মালিকরা থাকেন না সেখানে কারা, কতদিন ধরে অবস্থান করছেন, তাদের পেশা কি? এসব বিষয় মাথায় রেখে এই তল্লাশি অভিযান চালানো হয়। এ অভিযান পর্যায়ক্রমে পুরো জেলায় অব্যাহত থাকবে। গাজীপুর থেকে সন্ত্রাস ও জঙ্গীদের চিহ্নিত করে সকল অপরাধ নিমূল করা হবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত ২৩ এপ্রিল জেলার টঙ্গীতে ১৫টি ওয়ার্ডে একযোগে জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদকবিরোধী সাঁড়াশি অভিযানে (ব্লক রেড) নারীসহ দশজনকে আটক করেছিল পুলিশ। ওই সময় বিপুল পরিমাণ জিহাদী বইসহ দুই নারী ও ছুরিসহ একজন এবং মাদক সেবনের অপরাধে সাতজনকে হাতে নাতে আটক করা হয়। আটককৃত দুই নারীর বাসা থেকে তিন থেকে চার বস্তা জিহাদী বই উদ্ধার হয়েছিল বলে জানায় পুলিশ।

One thought on “গাজীপুরে সন্ত্রাস ও জঙ্গীর খোঁজে বাড়ি বাড়ি তল্লাশী চলছে !!!!

Leave a Reply

Top