You are here
Home > জাতীয় > কোনাবাড়ি ও কাশিমপুর রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা, পরিদর্শনে মেয়র জাহাঙ্গীর আলম

কোনাবাড়ি ও কাশিমপুর রাস্তাঘাট ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা, পরিদর্শনে মেয়র জাহাঙ্গীর আলম

 ইমন খানঃ

দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে বসে নেই,একের পর এক কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকাটাই তার নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে দাড়িয়েছে। আজ সকালে উত্তপ্ত রোদের ভিতরে নগরের কাশিমপুর থানাধিন ১ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন রাস্তাঘাট, ড্রেনেজ,খাল খনন সহ বিভিন্ন খারখানায় ইটিভি চালু আছে কিনা!  তা পরিদর্শন করেন গাজীপুর সিটির মাননীয় মেয়র আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। সবাই তাকে বলে কাজ পাগল মেয়র। ১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের ওয়ার্ডের দক্ষিণ পানিশাইলের বিভিন্ন রাস্তা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা দেখেন। এলাকার লোকদের দাবি দ্রুত রাস্তা ও ড্রেন চাই। কিন্তু সরেজমিনে গিয়ে মেয়র দেখলেন উল্টোটা। বিগত দিনে জনপ্রতিনিধিদের দিয়ে, খাল বরাট,ড্রেন বরাট, রাস্তার ফুটপাত দখল করে একশ্রেনীর পেশী শক্তিরা টাকা কামিয়ে অাঙ্গুল ফোলে কলা গাছ বনে গেছে। অথচ এলাকার, জনসাধারনের চিন্তাই তাদের মনে ছিল না। এই বিষয়গুলো এলাকার বিভিন্ন শ্রেনী পেশাজীবি মানুষদের বুজিয়েছেন মেয়র মহোদয় নিজেই। মেয়র বলেন কারখানার ইটিভি চালু করতে হবে,কারখানা থেকে কোন ময়লা পানি ড্রেনে আসতে পারবেনা।যদি কথা না শুনে তাহলে লাইসেন্স বাতিল করে দিবো। মেয়র এলাকা বাসীকে বলেন,আমি প্রায় ৮ হাজার কোটি টাকা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এনেছি,যদি সহযোগিতা না করেন,তাহলে কাজ থেকে বঞ্চিত হবেন আপনারাই। তখন এলাকার লোকজন একব্যক্যে মেয়র কে আশ্বস্ত করলেন। বিকাল ৩ টায় কোনাবাড়ি ৮, ৯ নং ওয়ার্ড পরিদর্শন শেষে,জেলাখানা রোড ২৫ ফিট,অন্যান্য রাস্তা ৩০/ ৬০ ফিট চওড়া হবে।  মেয়রের এই উদ্যোগ কে অনেকেই সাধুবাদ জানিয়েছেন। মেয়র কোনাবাড়ি ও কাশিমপুর জোনের সকল কাউন্সিলর ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের বলেন,সিটির সবথেকে বেশি বরাদ্দ এসেছে এই দুই এলাকায়।যদি রাস্তাঘাট ও পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করার জন্য সহযোগিতা না করেন,তাহলে উন্নয়ন বঞ্চিত হবেন আপনারা।

Leave a Reply

Top