You are here
Home > অর্থনীতি > কৃষিঋণে হাদিয়া কম, কর্মকর্তাদের আগ্রহও কম

কৃষিঋণে হাদিয়া কম, কর্মকর্তাদের আগ্রহও কম

বিশেষ প্রতিবেদকঃ ‘কৃষিঋণ বিতরণে ব্যাংক কর্মকর্তাদের আগ্রহ কম। এর মূল কারণ কৃষিঋণে হাদিয়া (ঘুষ) কম’। এই মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক অশোক কুমার দে।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যারয়ে ২০১৭-১৮ অর্থবছরের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচি ঘোষণা অনুষ্ঠানে অশোক কুমার এ মন্তব্য করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে নীতিমালা ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামান।

নির্বাহী পরিচালক অশোক কুমার বলেন, কৃষিঋণে হাদিয়া কম, তাই এ ঋণে আগ্রহ কম। সাবেক গভর্নরের আমলে রংপুরে কৃষিঋণ বিতরণের অনিয়মের প্রমাণ পেয়ে এক ব্যাংকের নয়জনকে বহিষ্কার করা হয়।

তিনি বলেন, এখন কৃষিঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে অনিয়ম অনেক কমেছে। আর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আগ্রহে ব্যাংকগুলোর সহযোগিতায় এ খাতে ঋণ বিতরণ বেড়েছে।

নতুন নীতিমালা অনুযায়ী চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ২০ হাজার ৪০০ কোটি টাকার কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে, যা গত অর্থবছরের তুলনায় ১৬ দশমিক ২৪ শতাংশ বেশি। চলতি অর্থবছরে বিতরণকৃত ঋণের মোট লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বিশেষায়িত ব্যাংক ছয় হাজার ৫৮০ কোটি টাকা, বাণিজ্যিক ব্যাংক তিন হাজার ১০ কোটি, বিদেশি ব্যাংক ৪৮৩ কোটি, বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক দশ হাজার ৩২৭ কোটি টাকা বিতরণ করবে।

এছাড়াও বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর বাইরে বাংলাদেশ সমবায় ব্যাংক ২০ কোটি ও বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন বোর্ড (বিআরডিবি) ৭২০ কোটি টাকার কৃষিঋণ বিতরণ করবে।

নীতিমালা ঘোষণাকালে ডেপুটি গভর্নর বলেন, কৃষিঋণের কর্মসূচি গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আয়ের বৈষম্য দূর করতে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

Leave a Reply

Top