You are here
Home > জীবন-যাপন > কিছু অভ্যাস তৈরি হোক এখনই

কিছু অভ্যাস তৈরি হোক এখনই

আমরা একটু সচেতন হলে গাছ ভালো থাকবে, আমরা ভালো থাকব। সেগুলো বোঝাতে হবে। 

স্টাফ রিপোর্টারঃ আমরা অনেক সময় ভাবি, শিশুরা পরিবেশ বা গাছপালার ক্ষতির বিষয়টা বুঝতে পারবে না। এটা ঠিক, হয়তো তিন বছরের একটা শিশু এসব উপলব্ধি করতে পারছে না। কিন্তু একটু একটু করে এই বয়স থেকে পরিবেশ ও পৃথিবী সম্পর্কে জানানো জরুরি। বিষয়টি নিয়ে কথা বললেন জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক মেখলা সরকার।

বাতি নেভানো
দিনের বেলা প্রয়োজন ছাড়া বাতি জ্বালিয়ে রাখার অভ্যাস থাকে অনেকের। অভিভাবকের উচিত সন্তানকে বলা বিদ্যুৎ সাশ্রয় কেন জরুরি পরিবেশের জন্য।

পানি অপচয় না করা
শিশুকে ছোট থেকেই শেখাতে হবে অযথা পানি দিয়ে না খেলতে। দেখা গেল, পানির ট্যাপ ছেড়ে দিয়ে দাঁত মাজছে। মায়েরাও অনেক সময় এ কাজ করেন, যা ঠিক নয়।

চারপাশ পরিষ্কার রাখা
বনভোজন বা অন্য কোথাও বেড়াতে গিয়ে চিপস, প্লাস্টিকের পানির বোতল আমরা যেখানে সেখানে ফেলে দিই। ডাস্টবিনে ময়লা ফেলার অভ্যাসও আমাদের কম। প্রথমত নিজেরা যত্রতত্র ময়লা ফেলবেন না। শিশুকেও ফেলতে নিষেধ করবেন। পড়ে থাকতে দেখলে শিশুরা যেন নিজেরাই সেগুলো তুলে নিয়ে ডাস্টবিনে ফেলে। এতে তাদের মধ্যে দায়িত্ববোধও তৈরি হবে।

প্রকৃতির কাছে নিয়ে যান
শুধু মুখে বলে সব সময় সবকিছু শেখানো যায় না। শিশুদেরও উপলব্ধি ক্ষমতা আছে। ছুটির দিনে বা সময় পেলে ওদের নিয়ে প্রকৃতির কাছে নিয়ে যান। আমরা একটু সচেতন হলে গাছ ভালো থাকবে, আমরা ভালো থাকব। সেগুলো বোঝাতে হবে। দূরে কোথাও যাওয়ার সুযোগ না থাকলে বাসার কাছের কোনো পার্ক বা মাঠে নিয়ে যেতে পারেন, যেখানে সবুজের সমারোহ আছে।

বাগান করতে উৎসাহিত করুন
শহরের সব বাসায় অনেক জায়গা থাকে না। কিন্তু বারান্দায় লাগাতে পারেন ছোট ছোট গাছ। সন্তানকেই বলবেন সেগুলোর যত্ন নিতে। তাহলে ওর মধ্যে গাছের প্রতি ও পরিবেশের প্রতি মায়া তৈরি হবে।

Leave a Reply

Top