You are here
Home > আন্তর্জাতিক > ‘কাশ্মিরে তৃতীয় দেশের সেনাবাহিনী ঢুকতে পারে’

‘কাশ্মিরে তৃতীয় দেশের সেনাবাহিনী ঢুকতে পারে’

অনলাইন ডেস্কঃ পাকিস্তানের অনুরোধে তৃতীয় কোনো দেশের সেনাবাহিনী ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে ঢুকে পড়তে পারে। গত তিন সপ্তাহ ধরে সিক্কিমের দোকলামে ভুটানের অনুরোধে চীনা সেনাবাহিনীর একটি রাস্তা নির্মাণ কাজ ভারতীয় সেনাবাহিনী বন্ধ করে দেয়ার পর সেখানে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

 চীনের এক বিশ্লেষক বলেছেন, যে যুক্তিতে ভারতীয় সেনাবাহিনী চীনা সেনাবাহিনীর রাস্তা নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিয়েছে সেই একই যুক্তিতে পাকিস্তানের অনুরোধে কাশ্মিরে তৃতীয় কোনো দেশের সেনাবাহিনী ঢুকে পড়তে পারে।

চীনের ওয়েস্ট নরমাল ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর ইন্ডিয়ান স্টাডিজের পরিচালক লং জিংচুন বেইজিংয়ের রাষ্ট্রীয় দৈনিক গ্লোবাল টাইমে লেখা এক নিবন্ধে ওই যুক্তি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘এমনকি ভুখণ্ডের সুরক্ষার জন্যও যদি ভুটান ভারতকে অনুরোধ জানিয়ে থাকে তাহলে এটি শুধুমাত্র স্বীকৃত সীমানার মধ্যেই হতে হবে, বিতর্কিত এলাকায় নয়।’

লং জিংচুন বলেন, ‘অন্যথায় ভারতের যুক্তি অনুযায়ী, যদি পাকিস্তান সরকার অনুরোধ জানায় তাহলে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরসহ ভারত-পাকিস্তানের বিবাদপূর্ণ এলাকায় তৃতীয় কোনো দেশের সেনাবাহিনী প্রবেশ করতে পারে।’

চীনের এই রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে আগেও দোকলাম পরিস্থিতি নিয়ে ভারতের সমালোচনা করে বিভিন্ন নিবন্ধ প্রকাশ করেছে। তবে এবারই প্রথম কোনো নিবন্ধে কাশ্মির এবং পাকিস্তানকে টেনে আনা হয়েছে।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গত ৩০ জুনের এক বিবৃতির বরাত দিয়ে ওই নিবন্ধে বলা হয়েছে, ভুটানকে সহায়তার নামে ভারতীয় সেনাবাহিনী দোকলামে চীনা সেনাবাহিনীকে আক্রমণ করেছে। ভুটানকে সহায়তার নাম ব্যবহার করে আক্রমণ চালানোই ছিল মূল উদ্দেশ্য।

এর আগে গত ৩ জুলাই গ্লোবাল টাইমসের অপর এক নিবন্ধে বলা হয়, ভারতের সঙ্গে সীমান্ত বিরোধে চীন দৃঢ়ভাবে তার সার্বভৌমত্ব রক্ষা করবে এমনকি তা যুদ্ধের মাধ্যমে হলেও। সিকিম সেক্টরে দুই দেশের তীব্র উত্তেজনার মাঝে চীনের বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে দিয়ে এ মন্তব্য করেন।

দুই দেশের দীর্ঘতম সীমান্ত সিকিমের দোকলাম এলাকায় তৃতীয় সপ্তাহের মতো চীন-ভারত সামরিক বাহিনীর উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম এবং নীতিনির্ধারকরা বলেছেন, চীন এবং ভারতের মধ্যে যে সংঘাত রয়েছে তা যদি যথাযথ উপায়ে নিয়ন্ত্রণ করা না হয়; তাহলে যুদ্ধের সম্ভাবনা রয়েছে।

জম্মু-কাশ্মির থেকে অরুণাচল প্রদেশ পর্যন্ত চীন-ভারতের দীর্ঘ ৩ হাজার ৪৮৮ কিলোমিটার সীমান্ত আছে। এর মধ্যে সিকিমেই রয়েছে প্রায় ২২০ কিলোমিটার। চীনা বিশেষজ্ঞদের বরাত দিয়ে গ্লোবাল টাইমস বলছে, ভারতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধের বিনিময়ে হলেও চীন তার সীমান্তের সার্বভৌমত্ব রক্ষা করবে।

সূত্র : পিটিআই।

Leave a Reply

Top