You are here
Home > জাতীয় > কাপ্তাই হ্রদে মাছ শিকারের অনুমতি ১ আগস্ট থেকে

কাপ্তাই হ্রদে মাছ শিকারের অনুমতি ১ আগস্ট থেকে

স্টাফ রিপোর্টারঃ প্রায় তিন মাস বন্ধ থাকার পর আবারও রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদে মাছ শিকার শুরু হচ্ছে আগামী ১আগস্ট। তাই ফিরে আসছে মৎস্যজীবিদের কর্মচাঞ্চল্যতা। মঙ্গলবার মধ্যরাত ১২টা থেকে হ্রদে মাছ শিকারের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান। তবে হ্রদে পোনা মাছ নিধনের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

চলতি মৌসুমে কাপ্তাই হ্রদে মাছের সুষ্ঠু ও প্রাকৃতিক প্রজনন, বংশ বিস্তার এবং উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য গত ১লা মে থেকে মাছ শিকার, আহরণ ও বাজারজাতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে জেলা প্রশাসন। প্রতি বছর তিন মাসের জন্য এ নিষেধাজ্ঞা বলবত রাখা হয়।
র্দীঘ তিন মাস মাছ শিকার বন্ধ থাকার পর হ্রদে মাছ শিকারের ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়। এছাড়া এর মধ্যেই মাছের প্রজনন মৌসুম শেষ হয়েছে বলেও জানিয়েছেন বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএফডিসি) মৎস্য কর্মকর্তারা।

অন্যদিকে প্রায় তিন মাস পর কাপ্তাই হ্রদে আবারও মাছ শিকারে প্রস্তুত জেলেরা। তাদের মাঝে ফিরে এসেছে কর্মচাঞ্চল্যতা। জেলেরা জানান, নিষেধাজ্ঞার কারণে তিন মাস বসে থাকতে হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে স্বস্তি ফিরে পান তারা।

রাঙামাটি জেলা প্রশাসক মোঃ মানজারুল মান্নান জানান, চলতি মৌসুমে মাছের প্রাকৃতিক প্রজনন, উৎপাদন ও বংশ বিস্তার সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ায় হ্রদে মাছ শিকার, আহরণ ও বিপণনের ওপর জারি করা নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হচ্ছে। আগামী ১লা আগষ্ট মধ্যরাত থেকে হ্রদে সব ধরনের মাছ শিকার, আহরণ, পরিবহন ও বিপণন স্বাভাবিকভাবে করা যাবে।

জানা গেছে, কাপ্তাই হ্রদে মাছের ওপর নির্ভরশীল প্রায় ১ লাখ মৎস্যজীবী। এছাড়া মৎস্য ব্যবসায়ী ও পরিবহন শ্রমিকসহ রয়েছে আরও বহু মৎস্যজীবী। তিন মাস পর আবার সচল হয়ে উঠছে তাদের জীবীকা।

এদিকে কাপ্তাই হ্রদে মাছের প্রাকৃতিক প্রজনন সম্পন্ন হওয়ায় জেলা প্রশাসন শর্তসাপেক্ষে জেলেদের মৎস্য আহরণের অনুমতি দিয়েছে। তবে শর্তসাপেক্ষে কেবল বাংলাদেশ মৎস্য উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএফডিসি) রাঙামাটি জেলা দফতর থেকে লাইসেন্স গ্রহণ এবং আহরিত মাছের শুল্ক প্রদান করে কাপ্তাই হ্রদে মাছ শিকার ও আহরণ করা যাবে। তবে অবমুক্ত মৎস্য পোনার নিরাপত্তা রক্ষা ও বংশ বৃদ্ধির জন্য রাঙামাটি সদরের ফিসারিঘাট সংলগ্ন ২ কিলোমিটার, ডিসি বাংলো এলাকা এবং লংগদু উপজেলা নির্বাহী অফিসার কার্যালয় সংলগ্ন ২ কিলোমিটার হ্রদ এলাকার অভয়াশ্রমে কোন রকম মাছ শিকার ও আহরণ করা যাবে না।

Leave a Reply

Top