You are here
Home > জীবন-যাপন > কাঁচা আম খাওয়ার যত উপকারীতা

কাঁচা আম খাওয়ার যত উপকারীতা

বিশেষ প্রতিবেদক : আম একটি গ্রীষ্মকালীন ফল। গরমে দাবদাহে এক ফালি কাঁচা আম নিয়ে আসে প্রশান্তি। নানা গুণে ভরপুর আমকে বলা হয় ফলে রাজা। পাকা আমের তুলনায় কাঁচা আমের পুষ্টিগুণ বেশি। তবে পুষ্টিবিদরা বলেন, পাকা হোক কাঁচা হোক যেভাবেই খাওয়া হোক না কেন তা আমাদের জন্য উপকারী। চলুন জেনে নেয়া যাক কাঁচা আমের কিছু উপকারিতা-

চোখ ভাল রাখে : কাঁচা আম ক্যারোটিন ও ভিটামিনএ সমৃদ্ধ,  যা চোখের দৃষ্টি বাড়াতে সাহায্য করে,  রাত কানা রোগের হাত থেকে রক্ষা করে এবং চোখ ভালো রাখে ।

ভাল ঘুম হয় : আমে রয়েছে ভিটামিন ‘বি’ কমপ্লেক্স। এই ভিটামিন শরীরের স্নায়ুগুলোতে অক্সিজেনের সরবরাহ বাড়িয়ে দেয়। শরীরকে রাখে সতেজ। ঘুম আসতে সাহায্য করে।

ছোঁয়াচে রোগ থেকে বাঁচায় : কাঁচা আমে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-এ এবং ভিটামিন-সি। ভিটামিন-এ চোখের জন্য উপকারী এবং সি যে কোনো ধরণের ছোঁয়াচে রোগ থেকে বাঁচায়।

বাড়তি ওজন কমাবে : যারা ওজন কমাতে বা শরীরের বাড়তি ক্যালরি খরচ করতে চান, তাদের জন্য এখন আদর্শ ফল কাঁচা আম। পাকা মিষ্টি আমের চেয়ে কাঁচা আমে চিনি কম থাকে বলে এটি ক্যালরি খরচে সহায়তা করে।

রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় : কাঁচা আমে যথেষ্ট পরিমাণে পটাশিয়াম থাকে। আর এই পটাশিয়াম শরীরের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে।

গর্ভবতী মায়ের জন্য উপকারী : গর্ভবতী অবস্থায় মায়েরা কাঁচা আম খেলে অ্যান্টিবায়োটিক ক্ষমতা বেশি থাকে সন্তানের। ফলে জন্মানোর পর খুব কমই রোগে আক্রান্ত হয় শিশুরা।

 

 

 

 

Leave a Reply

Top