You are here
Home > Uncategorized > ওয়ার্ড ভিত্তিক সম্মেলনের মাধ্যমে ” জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশন”র নয়া কমিটি

ওয়ার্ড ভিত্তিক সম্মেলনের মাধ্যমে ” জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশন”র নয়া কমিটি


ইমন খানঃ

আমার অর্জিত ৮০% সম্পদ এই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে পরিচালিত হবে, গরীব ও মেধাবীদের শেষ আশ্রয়স্থল “জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশন ” — মানবিক মেয়র ও ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। বিভিন্ন সভা ও সেমিনারে কথাগুলো সবসময় বলে থাকেন মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। ২০১৭ সালের প্রথম থেকে আজ পর্যন্ত এশিয়া মহাদেশের অন্যতম ফাউন্ডেশন “জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশন “। এই ফাউন্ডেশন একক ব্যক্তির দ্বারা পরিচালিত, যিনি স্বপ্ন দেখিয়ে ক্ষ্যান্ত নয়,বাস্তবে পূরন করে দেখিয়েছেন। ২০২০ সালে ১০০ কোটি টাকার শিক্ষা বৃত্তি ঘোষনার মাধ্যমে তা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম মহোদয়ের কথার মধ্যে দিয়ে। সেই ফাউন্ডেশন কে গতিশীল করে কিভাবে এগিয়ে নেয়া যায়,সেই চিন্তা চেতনা মাথায় নিয়ে ১ থেকে ৫৭ নং ওয়ার্ড সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন আহবায়ক কমিটির জন্য সম্মেলন করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে ১ থেকে ১২ নং ওয়ার্ডের সম্মেলনের মাধ্যমে আংশিক কমিটির তালিকা প্রস্তুত করেছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতৃবৃন্দ। কাশিমপুর ১থেকে ৬ কোনাবাড়ি ৭ থেকে ১২ নং ওয়ার্ড সম্মেলনের আজ ছিল শেষ দিন। প্রতিটি ওয়ার্ডে সরকারি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ শিক্ষার্থীদের প্রতিযোগীতার মাধ্যমে এই কমিটি গঠন করা হয়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,একই পদের জন্য প্রার্থী ৩৫ জন। আনন্দমুখর পরিবেশে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওয়ার্ডের সর্বশ্রেণী পেশার মানুষকে আমন্ত্রণ করা হয়,এতে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের অংশ গ্রহন চোখে পড়ার মত। প্রতিটি ওয়ার্ডে স্ব শরীরে উপস্থিত থেকে সম্মেলনকে সফলতা,ফাউন্ডেশনের কার্যকারিতা,উদ্দেশ্য সহ সার্বিকভাবে সহযোগিতা করছেন সাবেক ছাত্রনেতা ” জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশন”র প্রধান নির্বাহী পরিচালক মোঃ আশরাফুল আলম রানা মোল্লা। ১৬ই জুন ১২ নং ওয়ার্ড সম্মেলন শেষে একান্ত আলাপচারিতায় রানা মোল্লা বলেন,মানবিক মেয়র ও জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশনের সম্মানিত চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এ্যাডঃ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম স্যারের নির্দেশনায় প্রতিটি ওয়ার্ডে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন আহবায়ক কমিটি গঠন করা হচ্ছে। এতে করে প্রতিযোগীদের বিপ্লব বাড়ছে,তেমনি প্রতিযোগীতা ও হচ্ছে । তিনি আরও বলেন,করোনার মহামারীর কারনে স্বল্প পরিসরে আয়োজন করেছি,বেশি লোক কে আমন্ত্রণ করা হচ্ছে না। তা ছাড়া জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশনের নাম শুনলে শত শত লোক চলে আসে,স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা সম্মেলন চালিয়ে যাচ্ছি। প্রতিটি ওয়ার্ড সম্মেলন শেষে আমরা আনুষ্ঠানিক ভাবে মাননীয় চেয়ারম্যান স্যারের উপস্থিতিতে কমিটির অনুমোদন দেয়া হবে। সম্মেলনের জন্য ছাত্র / ছাত্রীদের সাথে যোগাযোগ ও সম্মেলনকে গতিশীল করার জন্য সহযোগিতা করছেন জাহাঙ্গীর আলম শিক্ষা ফাউন্ডেশনের সমন্বয়ক মোঃ রুহুল আমিন।

Top