You are here
Home > জাতীয় > বিচারক সঙ্কটে আপিল বিভাগ, ২টি বেঞ্চ বন্ধ হয়ে গেছে

বিচারক সঙ্কটে আপিল বিভাগ, ২টি বেঞ্চ বন্ধ হয়ে গেছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে বিচারক সঙ্কট চরম আকার ধারণ করেছে। আপিল বিভাগে ১১টি বিচারকের পদের মধ্যে এসব এখন পাঁচটি শূন্য। বর্তমানে আপিল বিভাগে ছয়জন বিচারপতির মধ্যে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা এক মাসের ছুটিতে যাওয়ায় তিনটির মধ্যে দু’টি বেঞ্চ ইতোমধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে। কেবল একটিতে বিচারকাজ চলছে। দীর্ঘ দিন ধরে এসব পদে নতুন কোনো বিচারক নিয়োগ দেয়া হয়নি। জানা গেছে, সুপ্রিম কোর্টে অবকাশের আগে আপিল বিভাগে দু’টি বেঞ্চে মামলার বিচারকাজ চলত। এর মধ্যে একটি বেঞ্চের নেতৃত্বে ছিলেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা এবং দ্বিতীয় বেঞ্চের নেতৃত্বে ছিলেন বর্তমানে প্রধান বিচারপতির দায়িত্বপ্রাপ্ত বিচারপতি মো: আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা।

আপিল বিভাগে বর্তমান ছয়জন বিচারপতি হচ্ছেন : প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা, বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি মো. ইমান আলী, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার। প্রায় ছয় বছর আগে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে ১১ জন বিচারপতি কর্মরত ছিলেন। দুইজন অবসরের পর চলতি বছরের শুরুতে এ সংখ্যা নেমে আসে ৯ জনে। আবার চলতি বছরের গত ১ জানুয়ারি বিচারপতি বজলুর রহমান ছানার মৃত্যুর পর এ সংখ্যা দাঁড়ায় আটজনে। এরপর গত ১৪ মার্চ বিচারপতি নিজামুল হক নাসিম ও ৭ জুলাই বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা অবসরে যাওয়ার পর এ সংখ্যা ছয়জনে এসে দাঁড়ায়। এর মধ্যে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা গত ২ অক্টোবর এক মাসের ছুটিতে যান। এ অবস্থায় আপিল বিভাগে বিচারক সঙ্কট চরম আকার ধারণ করেছে।

শুধু আপিল বিভাগেই নয়, হাইকোর্ট বিভাগেও বিচারক স্বল্পতা দেখা দিয়েছে। গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে সুপ্রিম কোর্ট থেকে হাইকোর্ট বিভাগে আট বিচারক নিয়োগে নির্বাহী বিভাগকে সুপারিশ করা হয়েছিল। এই সুপারিশের প্রায় এক বছর হতে চলছে অথচ সুপ্রিম কোর্টের এই সুপারিশ এখনো সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে ফাইলবন্দী অবস্থায় পড়ে আছে। আইন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি ষোড়শ সংশোধনীর রায় প্রকাশ নিয়ে নির্বাহী বিভাগ ও বিচার বিভাগের মধ্যে সম্পর্কের শিথিলতার কারণে সুপ্রিম কোর্টের এই সুপারিশ স্থিমিত হয়ে পড়েছে।

হাইকোর্ট বিভাগে ৯০ জনেরও অধিক বিচারক কর্মরত থাকলেও অবসরে যাওয়ার কারণে বর্তমানের এ সংখ্যা ৮০ তে এসে দাঁড়িয়েছে। এ ছাড়া হাইকোর্ট বিভাগে দিন দিন মামলার সংখ্যা বাড়ছে। সংবিধানের ৯৬ (১) অনুচ্ছেদ অনুসারে বর্তমানে বিচারপতিদের বয়সসীমা সাতষট্টি বছর। ১৯৮৬ সালের ১১ নভেম্বর সংবিধানের সপ্তম সংশোধনীতে বিচারপতিদের অবসর গ্রহণের বয়সসীমা ৬২ থেকে বাড়িয়ে ৬৫ করা হয়। সর্বশেষ ২০০৪ সালের ১৬ মে চতুর্দশ সংশোধনীতে বিচারপতিদের অবসর গ্রহণের বয়সসীমা ৬৫ থেকে ৬৭ করা হয়।

Leave a Reply

Top