You are here
Home > সারা বাংলা > জেলার খবর > আত্রাই ও পত্নীতলায় পুলিশের সাথে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে দুইজন নিহত

আত্রাই ও পত্নীতলায় পুলিশের সাথে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে দুইজন নিহত

একেএম কামাল উদ্দিন টগর, নওগাঁ :

নওগাঁ জেলায় পুলিশের সাথে পৃথক বন্দুক যুদ্ধে ২ ব্যক্তির মৃতু হয়েছে। বৃহষ্পতিবার ভোর রাতে আত্রাই থানা পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মিনহাজুল ইসলাম ওরফে মিন্টু ওরফে শিকদার (৩৭) এবং পত্নীতলা থানা পুলিশের সাথে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে জাহিদুল ইসলাম (৩৮) নামের এই দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছে। নওগাঁর আত্রাই উপজেলার তিলাবদুরী গ্রামে ও পত্নীতলা উপজেলার বাকরইল গ্রামে পুলিশের সাথে পৃথক এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

আত্রাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোসলেম উদ্দিন জানান, মিনহাজুল ইসলাম ওরফে মিন্টু ওরফে শিকদারের নামে আত্রাই থানায় চারটি হত্যা মামলাসহ কমপক্ষে ১০টি মামলা রয়েছে। বুধবার দিবাগত রাতে আত্রাই থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। পরে তার দেয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক অস্ত্র উদ্ধারে উপজেলার তিলবদুরী এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা মিনহাজুলের সহযোগি সন্ত্রাসীরা পুলিশের উপর গুলি চালায়। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে ঘটনাস্থলেই মিনহাজুলের মৃত্যু হয়। পুলিশ এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ১টি বিদেশী পিস্তল, চার রাউন্ড গুলি, চারটি বোমা উদ্ধার করেছে। বন্দুকযুদ্ধে নিহত মিনহাজুল আত্রাই উপজেলার ভর তেতুলিয়া গ্রামের আব্দুর রহমান ওরফে পরা’র পুত্র।

অপরদিকে, পত্নীতলা থানার অফিসার্স ইনচার্জ পরিমল চক্রবর্তী জানিয়েছেন বন্দুকযুদ্ধে নিহত জাহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে পত্নীতলা থানায় ১২টি মাদকের মামলা রয়েছে। বুধবার গভার রাতে রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তার দেয়া স্বীকারোক্তি মোতাবেক অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারে বাকরাইল গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেও তার সহযোগী মাদক ব্যবসায়ীরা আগে থেকেই ওৎ পেতে ছিল। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। এ সময় ঘটনাস্থলেই গুলিবিদ্ধ হয়ে জাহিদুল ইসলাম নিহত হয়। পুলিশ সেখান থেকে বিপুল পরিমান ইয়াবা, দেশী তৈরী ১টি সাটার গান, দুই রাউন্ড গুলি, ৪টি বড় হাঁসুয়া উদ্ধার করে। নিহত জাহিদু‘ল ইসলঅম পত্নীতলা উপজেলার বালুঘা গ্রামের মৃত রফাতুল্যার পুত্র।

বৃহস্পতিবার সকালে লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Top